প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিশ্বব্যাংক জানালো, ২০১৮ সালে বাংলাদেশের প্রবাসী আয় বেড়েছে ১৫ শতাংশ, সর্বোচ্চ আয় ভারতের

আসিফুজ্জামান পৃথিল : বিশ্বব্যাংক তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০১৮ সালে বিশ্বজুড়ে রেকর্ড রেমিট্যান্স প্রবাহিত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি অর্থ দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসী ভারতীয়রা। বাংলাদেশিরাও বিগত বছরের তুলনায় অর্থ পাঠানোর হার ১৫ শতাংশ বাড়িয়েছেন।

সর্বশেষ বছরে মধ্য ও নিম্ন আয়ের দেশগুলোতে রেমিট্যান্স প্রবাহিত হয়েছে ৫২ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের। গত বছরের চেয়ে যা ৯.৬ শতাংশ বেশি। এটি একটি রেকর্ড। গত বছর রেমিট্যান্স প্রবাহিত হয়েছিলো ৪৮ হাজার ৩০০ কোটি। আর উচ্চ আয়ের দেশগুলোতে প্রবাহিত রেমিট্যান্স ছিলো ৬৮ হাজার ৯০০ কোটি। ২০১৭ সালে এর পরিমাণ ছিলো ৬৩ হাজার ৩০০ কোটি।

এবছর সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসী ভারতীয়রা। তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের পরিমান ৭ হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলার। এরপরেই ৬ হাজার ৭০০ কোটি মার্কিন ডলার নিয়ে রয়েছে চীন। তিন নম্বরে থাকা মেক্সিকোর আয় ৩ হাজার ৬০০ কোটি ডলার। ৪ নস্বরে রয়েছে ফিলিপাইন। তাদের আয় ৩ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। ৫ নম্বরে থাকা মিসরের আয় ২ হাজার ৯০০ কোটি ডলার।

দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের পরেই রয়েছে পাকিস্তান। তাদের প্রবাসী আয় ২ হাজার ৯০ কোটি ডলার। এক হাজার ৫৯০ কোটি ডলার নিয়ে এরপরেই রয়েছে বাংলাদেশ। ৮২০ কোটি ডলার নিয়ে ৪ নম্বরে আছে নেপাল।

বিশ^ব্যাংক এর দেওয়া তথ্যানুযায়ী নেপালের জিডিপির ৩০.১ শতাংশই আসে প্রবাসী আয় থেকে। শ্রীলঙ্কার আসে ৮.১ শতাংশ। পাকিস্তানের জিডিপির ৬.৯ শতাংশ দখল করে আছে রেমিট্যান্স। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এই হার ৫.৬ শতাংশ। আর ভারতের জিডিপির ২.৮ শতাংশ প্রবাসী আয়ের দখলে।

বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তান এই ৩ দেশেই ২০১৮ সালে প্রবাসী আয় বেড়েছে। বাংলাদেশের আয় বেড়েছে ১৫ শতাংশ। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের আয়ই সবচেয়ে বেশি বেড়েছে।

২০১৭ সালে বাংলাদেশের আয় ছিলো ১ হাজার ৩২০ কোটি ডলার।

আঞ্চলিকভাবে পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলে রেমিট্যান্স বেড়েছে ৭ শতাংশ। আর দক্ষিণ এশিয়ায় বেড়েছে ১২ শতাংশ।

বিশ^জুড়ে রেমিট্যঅন্স বাড়ার মূল কারণ হিসেবে বিশ^ব্যাংক শক্তিশালী অর্থনীতি এবং যুক্তরাষ্ট্রে কর্মপরিসর বৃদ্ধি। এছাড়াও উপসাগরীয় দেশগুলো থেকে অর্থপ্রবাহও বড় ধরণের অবদান রেখেছে। চীনকে বাদ দিলে মধ্য ও নি¤œ আয়ের দেশগুলোতে অর্থ প্রবাহ (৪৬ হাজার ২০০ কোটি ডলার), দেশগুলোতে আসা সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের (৩৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলার) চেয়ে বেশি। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত