প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযান যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত করতে পারে, জাতিসংঘের হুঁশিয়ারি

লিহান লিমা: গত সপ্তাহে রাখাইনে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হেলিকাপ্টার হামলা যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত করতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতিসংঘ। শুক্রবার জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদ জানিয়েছে, সেনাবাহিনীর হামলায় বে-সামরিক নাগরিক নিহত ও অপহরণের গ্রহণযোগ্য প্রমাণ রয়েছে। ইউএন নিউজ

গত ৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় দুটি সামরিক হেলিকপ্টার দক্ষিণ বুথিডংয়ে হপন নিও লেইক গ্রামের ওপর গুলিবর্ষণ করলে অনন্তত সাতজন নিহত ও ১৮ জন আহত হন। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই-কমিশনার রাভিনা শামদেসানি জেনেভাতে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘এই সপ্তাহে রাখাইনে সহিংসতা বৃদ্ধিতে আমরা অনেক উদ্বিগ্ন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী আরো জনগণের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে, যা যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত করতে পারে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী কর্তৃক বে-সামরিক নাগরিকদের হত্যা, বাড়ি ঘরে অগ্নিকা-, নির্বিচারে গ্রেপ্তার, অপহরণ, লুণ্ঠন ও প্রাকৃতিক সম্পদ বিনষ্ট করার সুস্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে।’

শামদেসানি বলেন, গত সপ্তাহে উত্তরের বন্দর শহর সিত্তো থেকে ৪ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়েছে। সেনাবাহিনীর এই অভিযানের শিকার হয়েছেন রোহিঙ্গা মুসলিমসহ অন্যান্য সংখ্যালঘুরা। রাখাইনে সাম্প্রতিক সহিংসতায় ২০ হাজারেরও বেশি বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। এদিকে মিয়ানমার সেনাবাহিনী বলছে, যারা নিহত ও আহত হয়েছে তাদের সঙ্গে আরাকান আর্মির সংশ্লিষ্টতা ছিলো।
এর আগে ২০১৬ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ব্যাপক অভিযানের মুখে পড়ে ৭ সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। জাতিসংঘ এই নিধনযজ্ঞকে ‘উদ্দেশ্যমূলক গণহত্যা’ বলে অভিযুক্ত করে ও মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে বিচারের মুখোমুখি করার কথা জানায়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত