প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রাথমিকের ফল পুনঃনিরীক্ষণ
ফেল থেকে পাস ৮ হাজার শিক্ষার্থী

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ির ফল পুনঃনিরীক্ষণে ২১ হাজারের বেশি শিক্ষার্থীর ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে। ফেল থেকে পাস করেছে সাড়ে ৮ হাজার, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে সহস্রাধিক শিক্ষার্থী। রোববার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পঞ্চম শ্রেণির বৃত্তির ফল প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত বছরের ২৪শে ডিসেম্বর পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এরপর একমাসজুড়ে মোবাইল এসএমএসের মাধ্যমে পিইসি ও সমাপনী পর্যায়ের ৯৪ হাজার শিক্ষার্থী প্রকাশিত ফলাফলে অসন্তুষ্ট হয়ে পুনরায় ফল মূল্যায়নে আবেদন করে। এসব আবেদনের মধ্যে ৮ম সমাপনী ও ছয় হাজার ইবতেদায়ি শিক্ষার্থী রয়েছে। এদের মধ্যে কেউ প্রাপ্ত ফল বাড়ানো, কেউ ফেল থেকে পাস করার জন্য আবদেন করে বলে জানা যায়। কর্মকর্তারা জানান, পুনঃনিরীক্ষণ ফলে সমাপনী ও ইবতেদায়ির ২১ হাজার ৩৩৫ জন শিক্ষার্থীর ফল পরিবর্তন হয়েছে।

নতুন করে এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে। সবচেয়ে বেশি ইংরেজি, অঙ্ক ও বিজ্ঞান বিষয়ে ফল পরিবর্তন হয়েছে। পরিবর্তিত ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে পঞ্চম শ্রেণির বৃত্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন ডিপিইর মহাপরিচালক।

জানা গেছে, গত বছরের ২৪শে ডিসেম্বর পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে পাসের হার ছিল ৯৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পায় তিন লাখ ৬৮ হাজার ১৯৩ জন শিক্ষার্থী। তার মধ্যে ছেলেদের মধ্যে এক লাখ ৬১ হাজার ৪১১ জন ও মেয়েরা দুই লাখ ৬ হাজার ৭৮২ জন। এ পরীক্ষায় ২৬ লাখ ৫২ হাজার ৮৯৬ জন পরীক্ষা দিয়ে ২৫ লাখ আট হাজার ৯০৪ জন পাস করে। তার মধ্যে ১২ লাখ ১১ হাজার ৬০০ জন ছাত্র ও ১৪ লাখ ৪১ হাজার ২৯৬ জন ছাত্রী। প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়িতে ছেলেদের পাসের হার ৯৭ শতাংশ ৪৮ শতাংশ, আর মেয়েদের পাসের হার ৯৭ শতাংশ ৬৭ শতাংশ। অন্যদিকে, ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৯৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পায় ১২ হাজার ২৬৪ জন। মোট পরীক্ষার্থী ছিল দুই লাখ ৭৪ হাজার ৯০৭ জন। এর মধ্যে পাস করে দুই লাখ ৬৮ হাজার ৫৫৭ জন। পাস করা পরীক্ষার্থীদের মধ্যে এক লাখ ৩৬ হাজার ৯৮৮ জন ছাত্র ও এক লাখ ৩১ হাজার ৫৬৯ জন ছাত্রী। গত ২২শে নভেম্বর শুরু হয় পিইসি ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা। শেষ হয় ৩০শে নভেম্বর।
সূত্র : মানবজমিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত