প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে সরকার কাজ করছে: গণপূর্তমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশে মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে সরকার অবিরাম কাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম। তিনি বলেন, এটা বাংলাদেশের ইতিহাসে অন্য কেউ করেনি। মানবাধিকারের বিষয়ে সোচ্চার ভূমিকা রাখার ক্ষেত্রে সরকারের ন্যূতম কোনো বাধা নেই। আমরা সরকারের পক্ষ থেকে চাই একজন নাগরিকেরও মানবাধিকার যেন লঙ্ঘিত না হয়। এক্ষেত্রে সবাই সহায়তা দিতে প্রস্তুত।

শনিবার রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে ‘মাসিক মানবাধিকার খবর’-এর সপ্তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মানবাধিকার খবরের সম্পাদক ও প্রকাশক রিয়াজ উদ্দিন এবং গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান আবেদ খান, জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, উম্মে ফাতেমা নাজমা এমপি, বাংলাদেশ মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. মো. আব্দুর রহিম খান, জাদুশিল্পী জুয়েল আইচ প্রমুখ।

মন্ত্রী বলেন, মানবাধিকার বঞ্চিত হওয়ার ব্যথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানেন। তার পরিবারের সবাইকে হত্যা করা হলো, তিনি বিচার পাননি। পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে সারাদেশ বার্ন ইউনিটে পরিণত করে বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছিল। সে জায়গা থেকে আজ আমাদের উত্তরণ হয়েছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, মানুষের সাংবিধানিক অধিকার হচ্ছে তার মানবাধিকার। সংবিধান নাগরিককে যে অধিকার দিয়েছে, সে অধিকার থেকে তিনি যদি বঞ্চিত থাকেন, তাহলে তিনি মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত হন।

মিয়ানমারের অসহায় নিরস্ত্র মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা ও জীবন্ত পুড়িয়ে মারার ঘটনা উল্ল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এই বর্বরোচিত ঘটনায় মিয়ানমারের মানুষ যখন বিপন্ন হয়ে পড়েছিল, সারা দুনিয়া তখন নির্বাক হয়ে তাকিয়ে ছিল। কেউ সাড়া দেয়নি।

মানবাধিকারকে সমুন্নত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সীমান্ত খুলে দিয়ে লাখ লাখ মানুষকে আশ্রয় দিয়ে তাদের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থানের সুযোগ করে দিয়ে প্রমাণ করেছেন, সারাবিশ্বে তিনিই হচ্ছেন নেতা, যিনি মানবাধিকার রক্ষায় ভূমিকা রেখেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত