প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাকির নায়েকের বিশ্বস্ত আবদুল কাদির গ্রেফতার

খালিদ আহমেদ : টাকা পাচার এবং ভারতে সাম্প্রদায়িক হিংসায় উসকানি দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন  আবদুল কাদির নাজমুদ্দিন সাথক । তার বিরুদ্ধে মধ্যপ্রাচ্য থেকে ভারতে বেআইনি উপায়ে টাকা পাচারের অভিযোগ রয়েছে। তিনি জাকির নায়েকের খুব ঘনিষ্ঠ এবং বিশ্বস্ত ছিলেন। কলকতা ২৪ ।

শুক্রবার এনফোর্স্মেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি আবদুল কাদিরকে  গ্রেফতার করেছে। ইডি জানায়, আবদুল কাদির নাজমুদ্দিন সাথক জাকির নায়েকের খুবই ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি। মধ্যপ্রচ্যে তার একটি সম্প্রচার সংস্থা রয়েছে। যেখান থেকে জাকিরের পিস টিভি পরিচালক সংস্থায় নিয়মিত টাকা পাঠান হতো। তদন্তে নেমে জানা গিয়েছে সেই পাঠানো টাকার মোট পরিমাণ প্রায় ৭৯ কোটি টাকা। দুই সংস্থার মাধ্যমেই ভারতসহ বিভিন দেশে উসকানিমূলক অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হতো।

গত বেশ কয়েক বছর ধরে দেশে ফেরেনি  ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েক। তার বিরুদ্ধে সমাজে বিভেদ ছাড়ানো এবং জঙ্গিবাদে মদদ দেয়ার মতো মারাত্মক অভিযোগ ছিল। ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন এবং পিস টিভির মাধ্যমে নিজের বক্তব্য প্রচার করতো জাকির। সেই চ্যানেলের মাধ্যমে সম্প্রচারিত জাকিরের বক্তব্য হিংসায় ইন্ধন জোগাত এবং বাংলাদেশের রাজাধানী ঢাকার গুলশনে হামলাকারী জঙ্গিরা জাকিরে বক্তব্য শুনেই অনুপ্রাণীত হয়েছিল বলে অভিযোগ।

সেই সময় থেকেই আর দেশে ফেরেনি জাকির নায়েক। বর্তমানে তিনি ইন্দোনেশিয়াতে রয়েছেন। ওই দেশের প্রশাসন তার পাশে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে ভারতে তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্তে নামে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা। সেই তদন্তে নেমেই জাকির ঘনিষ্ঠ এবং পিস টিভির এক ডিরেক্টর আমিত গাজদার নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে এনআইএ। এবার সেই তালিকাতেই যুক্ত হয়েছে আরও একটি নাম, আবদুল কাদির নাজমুদ্দিন সাথক।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে, পিস টিভি-তে কোনও বিজ্ঞাপন দেখানো হতো না। কিন্তু চ্যানেল চলতো। আবদুল কাদির নাজমুদ্দিন সাথকের সংস্থা থেকে পিস টিভি পরিচালক সংস্থাকে টাকা দেওয়া হয়েছে এবং তা দেখানো হয়েছে বাণিজ্যিক লেনদেন হিসেবে। কেন এই বাণিজ্যিক লেনদেন হয়েছে? বা এর লেনদেনের ফলে কোনও সংস্থার কী লাভ বা ক্ষতি হয়েছে তা স্পষ্ট করে জানাতে পারেনি আবদুল কাদির নাজমুদ্দিন সাথক। সেই কারণেই জাকির ঘনিষ্ঠ এই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইডি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত