প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাখাতের ইতিহাসে সবচাইতে বড় সংগঠিত দুর্নীতি
যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাখাতে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে আটক ৫০

নূর মাজিদ : শুধু উন্নয়নশীল দেশেই নয় বরং যুক্তরাষ্ট্রের মতো উন্নত রাষ্ট্রেও শিক্ষাখাতে দুর্নীতি হয়। গত বুধবারের দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে অন্তত এই চিত্রই ফুটে উঠেছে। বুধবার এফবিআই তদন্তকারীরা এক দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে ৫০জন প্রভাবশালী ব্যক্তিকে আটক করেন। যাদের অনেকেই আবার হলিউড সেলিব্রেটি, ফ্যাশন ডিজাইনার, শিক্ষা কর্মকর্তা এবং গণমাধ্যমের সঙ্গে যুক্ত বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব।

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ধনী অভিভাবক হিসেবে নিজেদের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অবস্থানের সুযোগ নিয়ে তারা নিজ সন্তানদের দেশটির শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজগুলোতে ভর্তি করিয়েছেন। মেধার বিবেচনায় ধনী পরিবারের সন্তানেরা এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নের যোগ্যতা রাখেন না। গত মঙ্গলবার মার্কিন বিচার বিভাগের কর্মকর্তারা প্রথম এই দুর্নীতির কথা জানান।

মঙ্গলবার ম্যাসেচুটেস রাজ্যের অ্যাটর্নি আন্ড্রু লেলিং একটি সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, ‘এটি যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাখাতের ইতিহাসে সবচাইতে বড় সংগঠিত দুর্নীতি এবং অপরাধ। অভিযুক্ত অভিভাবকরা নিজেদের অর্থ এবং প্রতিপত্তিকে কাজে লাগিয়ে অন্যায় করেছেন। এরা পরিকল্পিতভাবে ভর্তি পরীক্ষায় বিদ্যমান ফাঁকির সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করেছেন। যেখানে বেশ কিছু বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কর্মকর্তারা সাহায্য করেছেন। তাদের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

এরপরেই গত বুধবার এফবিআই অপারেশন ভার্সিটি-ব্লু নামক এক অভিযান শুরু করে। যার আওতায় গেফতার হন ডেসপারেট হাউজ ওয়াইফিস টিভি সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ফেসিলিটি হফম্যান, ফুল হাউজ সিরিয়াল অভিনেত্রী লোরি লোগলিনের মতো জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও, এক বিলিয়নিয়ার ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধেও গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে এফবিআই।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান জানায়, এই সকল অভিভাবক ‘স্যাট’ এবং ‘ক্যাট’ নামক দুই ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় নিজ সন্তানদের মেধাভিত্তিক ত্রুটি ঢাকতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তাদের ১৫ হাজার থেকে ৭৫ হাজার ডলার ঘুষ দিয়েছেন। ফলে তারা এমন একটি দুর্নীতি করেছেন যার কারণে, পরীক্ষায় ধনী পরিবারের সন্তানেরা অধিক ভালো ফল অর্জন করেন।

মার্কিন গণমাধ্যমের সুত্রগুলো জানায়, এখন পর্যন্ত মাত্র কয়েক মিলিয়ন ডলারের লেনদেনের খবর এফবিআই- এর কাছে আছে। তবে স¤পূর্ণ দুর্নীতির চিত্র প্রকাশ পেলে এই সংখ্যা কয়েকশ’ কোটি ডলারে গিয়ে দাঁড়াতে পারে। ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া, ইয়েল, স্ট্যানফোর্ড, জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় উচ্চ-বিদ্যাপীঠের নামও উঠে এসেছে এফবিআই তদন্তে ।

তবে মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন উইলিয়াম সিঙ্গার নামে এক শিক্ষা ব্যবসায়ী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তুতি নিতে সহায়ক ‘দ্য কি’ নামক একটি কোচিং পরিচালনা করতেন। মূলত, তিনি অভিভাবকদের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কর্মকর্তাদের ঘুষ দেয়ার কাজটি করতেন। বুধবারের অভিযানে তাকেও গ্রেফতার করেছে এফবিআই। দ্য গার্ডিয়ান, সিএনএন, দ্য কনভার্সেশন, নিউইয়র্ক টাইমস

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত