প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

ডিপিএলে ফিরেই মাশরাফির জয়

শিউলী আক্তার: ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) ১৩তম ম্যাচে ‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুর শেরে-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় আহাহনী লিমিটেড ও ব্রাদার্স ইউনিয়ন। আবাহনী দলে ফিরে মাশরাফি বিন মুর্তজা জয়ের ধারা অব্যাহত রেখে ব্রাদার্সকে হারায়। তার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ১৪ রানের জয় পায় দল।

টস হেরে ব্যাট করতে নামে আবাহনী। শুরুতেই টপ অর্ডারের তিন বিশ্বস্ত ব্যাটসম্যান জহুরুল ইসলাম, জাহিদ জাভেদ ও ভারত জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ওয়াসিম জাফরকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় আবাহনী।

সেই চাপ সামলে ধীরে-স্থিরে খেলতে থাকেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন। শান্ত ৭২ বলে ৪৪ ও মোসাদ্দেক ৯৫ বলে ৫৪ রান করেন। এছাড়া সাব্বির রহমান ১৭ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তাদের ধীর ব্যাটিংয়ে উইকেট হাতে রেখেও বড় সংগ্রহ না পাওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়। সেই শঙ্কা কাটিয়ে লড়াকু সংগ্রহ আসে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মাশরাফি বিন মুর্তজার ব্যাটে ভর করে।

সাইফউদ্দিন ও মাশরাফি দুজনই এদিন ব্রাদার্সের বোলারদের তুলোধুনো করেছেন। তবে স্ট্রাইক রেট বেশি ছিল মাশরাফিরই। সপ্তম উইকেটে দুজনে গড়ে তোলেন ৬২ রানের পার্টনারশিপ, তাও মাত্র ৩২ বলের মোকাবেলায়। ১৫ বলের মোকাবেলায় ৩টি চার ও ১টি ছক্কা হাঁকিয়ে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন মাশরাফি। তার মারকুটে ব্যাটিং যেন সাহস যুগিয়েছিল প্রথমে ধীরে শুরু করা সাইফউদ্দিনকে। ৪টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৪৫ বলে ৫৯ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনিও।

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৩৬ রান সংগ্রহ করে আবাহনী লিমিটেড।

২৩৭ রানের তাড়া করতে নেমে শুরুতেই মিজানুর রহমান, জুনায়েদ সিদ্দিকী ও হামিদুল ইসলামকে হারায় ব্রাদার্স। এরপর ইয়াসির আলী প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। তবে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেননি কেউ। যেখানে দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান শরীফউল্লাহর ২০, সেখানে ইয়াসির একাই করেন ১০৬ রান। ১১২ বলের মোকাবেলায় ৮টি চার ও ২টি ছক্কায় এই ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন তিনি। ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারানো ব্রাদার্সের ইনিংস থামে ২২২ রানে।

আবাহনীর পক্ষে দুটি করে উইকেট শিকার করেন মাশরাফি ও সাব্বির।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত