প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সাধারণ নির্বাচন এবং ডাকসু নির্বাচনের চরিত্র এক নয়, বলেছেন আবুল মকসুদ

মো. আল-আমিন মাসুদ: খ্যাতিমান লেখক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেছেন, ডাকসু নির্বাচনের চরিত্র এবং বাংলাদেশের অন্য সকল নির্বাচনের চরিত্র এক নয়। জাতীয় নির্বাচনে একজন প্রার্থী শিক্ষিত নাও হতে পারে। পঞ্চম শ্রেণি পাশ করেও নির্বাচিত হওয়ার প্রমাণ জাতীয় নির্বাচনে রয়েছে। আবার সব ভোটারাও ওখানে শিক্ষিত থাকে না। কিন্তু ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থী ও ভোটার দেশের শিক্ষিত মেধাবীরাই। একেবারে কম করে হলেও উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে মেধার সাক্ষর রেখেই ডাকসু’র ভোটার বা প্রার্থী হতে হয়।

মঙ্গলবার এনটিভির ‘এই সময়’ অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, নির্বাচনে কারচুপি হোক অথবা নির্বাচন নিয়ে বির্তক যাই থাকুন এটা পরিস্কার ভোটারা এখানে অনেক সচেতন। তারা দেশের বাস্তব অবস্থা সর্ম্পকে সচেতন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস থেকেও বোঝা যায় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কতোটা সচেতন, ডাকসু’র শুরু থেকেই ক্ষমতাসীনরা কখনোই জোর করে এখানে প্রভাব বিস্তার করতে পারে নি বা বিজয়ী হতে পারে নি।

তিনি আরো বলেন, নিবাচনের ফলাফল প্রকাশের পর ধর্মঘটের ডাক দেওয়ায় সংঘাতের সম্ভাবনা ছিলো। কিন্তু ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের নেতার সঙ্গে বিজয়ী ভিপির কোলাকুলির পর এবং শান্তিপূর্ণসহ অবস্থানের প্রতিশ্রুতির পর সে সম্ভাবনা আর নেই। তাই এটাকে ইতিবাচকই দেখা যায় এবং আশা করি এই প্রতিশ্রুতি সবাই বজায় রাখবে।

ডাকসু নির্বাচনে তথ্যমন্ত্রীর মন্তব্য এবং শুভেচ্ছা জানানো সম্পর্কে তিনি বলেন, এই নির্বাচন নিয়ে সরকার বা ক্ষমতাসীন দলের মন্তব্য করা এবং সরাসরি শুভেচ্ছা জানানোর নজীর নেই। এরশাদের শাসন আমলেও ক্ষমতাসীন কেউ ডাকসু নিয়ে মন্তব্য করেনি। এটা শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয়। কোনো সমস্যা হলে তখন ভিসিসহ প্রশাসনের সবাই মিলে সমাধান করেছে। শুধু দু একবার আদালতের মাধ্যমে এর সমাধান হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত