প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যায় ওবায়দুল কাদের

সারোয়ার জাহান : গুরুতর অসুস্থ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যায় রয়েছেন।-এটিএন নিউজ

সোমবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে সিঙ্গাপুরের অ্যারোস্পেস রোডের সেলেটর বিমানবন্দরে অবতরণ করে ওবায়দুল কাদেরকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি।

এর আগে তাকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি বিকেল ৪টা ২১ মিনিটে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর ত্যাগ করে।

বেলা ৩টা ২০ মিনিটের দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে তাকে বহনকারী একটি অ্যাম্বুলেন্স বিমানবন্দরের দিকে রওনা হয়।

ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে। সেখানে তিনি হাসপাতালটির ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলোজি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও প্রিন্সিপাল ডক্টর ফিলিপ কোহ এর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নেবেন।

বিএসএমএমইউ’র হৃদরোগ বিভাগের অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামান জানান, এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে স্থান সংকুলানের কারণে বাংলাদেশ থেকে দু’জন তার (ওবায়দুল কাদের) সঙ্গে যান। তারা হলেন- ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইশরাতুন্নেসা কাদের ও নিউরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. আবু নাসের রিজভী।

ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণে আজ (সোমবার) সকালে ভারত থেকে নিয়ে আসা হয় দেশটির প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠীকে। দেবী শেঠীর প্রসঙ্গ টেনে অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, দেবী শেঠী বলেছেন ইউরোপ-আমেরিকায় যে ধরনের চিকিৎসা হয় এখানে তার চেয়ে কোনো অংশে কম হয়নি। খুব ভালো চিকিৎসা হয়েছে। ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রীর দিকে তাকিয়ে দেবী শেঠী বলেন, ইউর হাসবেন্ড ইজ লাকি। যে চিকিৎসা করা হয়েছে এর চেয়ে বেশি কিছু করার নেই। তিনি এখন সেভ পজিশনে আছেন।

এনজিওগ্রামে তার হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়লে স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে একটি অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও এখনও সঙ্কট কাটেনি বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

সূত্র : জাগোনিউজ

ডা. দেবী শেঠির পরামর্শে কাদের সিঙ্গাপুরে। অবস্থার উন্নতি হলেও রয়েছে ঝুঁকি।

ডা. দেবী শেঠির পরামর্শে কাদের সিঙ্গাপুরে। অবস্থার উন্নতি হলেও রয়েছে ঝুঁকি।

Posted by JaagoBangla Tube on Monday, March 4, 2019

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত