প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জনতার পুঁজিতে ব্র্যান্ড ঘড়ির কোম্পানি

লিলি লী : জ্যাক কাসান ও ক্রামের ল্যাপ্ল্যান্টে। পড়াশুনা শেষ করার আগেই কলেজ ছেড়েছিলো। তারা ফ্যাশন জগতে প্রতিষ্ঠা পেতে চেয়েছিলো। কিন্তু সেখানে এমন কোন নতুন ব্র্যান্ড ছিলো না যার ওপর নির্ভর করে তারা ব্যবসা শুরু করতে পারে। তারওপর তারা ছিলো কর্পদকহীন। কিন্তু ১৯ বছর বয়সী এই দুই বন্ধু ছিলো উদ্যমী, সাহসী, সৎ। তাই তারা পেরেছিলো। বিপর্যন্ত ঘড়ি শিল্পে তারা সুবিধা করতে পারবে বলে মনে করেছিলো। জনগণের কাছ থেকে তহবিল বা পূঁজি সংগ্রহের আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ইনডিয়েগোগো’র পেজে তারা মতামত ও অর্থ চেয়েছিলো। ৫০ দিনের মধ্যে তারা অন্তত তিন লাখ ডলার সংগ্রহ করতে পেরেছিলো। জনগণ তাদের কাছ থেকে নতুন ডিজাইন কিন্তু ফ্যাশনেবল, যা সৌন্দর্য ও উচ্চাভিলাসী জীবনধারার প্রতীক বহন করে-এরকম একটি ঘড়ি পাওয়ার জন্য প্রি-অর্ডার বা কেনার আগেই অর্থ দিয়েছিলো। বিশেষ করে তরুণ ও যুবকদের কাছ থেকে এই অর্থ এসেছিলো। আর এভাবেই কাসান ও লাপ্ল্যান্টে’র এমভিএমটি বা মুভমেন্ট নামক ঘড়ির ব্র্যান্ড গড়ে ওঠে।

সেটা ছিলো ২০১৩ সাল। জনতার পূঁজি দিয়ে ই-কমার্স ব্যবসায় এমভিএমটি’ই ছিলো প্রথম ব্র্যান্ড। এবং তাদের প্রথম ঘড়িটির দাম ছিলো মাত্র ৯৫ ডলার, যা ঐ সময়ে এতোটাই কম দাম যে মানুষ চিন্তাই করতে পারতো না। প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তারা যে কৌশলটি নিয়েছিলো সেটা হলো- এতে কোন ডিপার্টমেন্টাল স্টোর বা ঘড়ির দোকান বা অন্য কোন খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানে যাওযার দরকার পড়তো না। ক্রেতারা সরাসরি তাদের ওয়েসসাইট থেকে এমভিএমটি ঘড়ি ও আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র কিনতে পারতো। তবে দাম বা মূল্যের বিষয়টি ছিলো তাদের সফলতার একটি অংশ।

কিন্তু কথা হচ্ছে, এমভিএমটি কিভাবে একটি বলে বেড়ানোর মতো লাইফস্টাল ব্র্যান্ডে পরিণত হলো? বর্তমানে ইনস্টাগ্রামে এর ১০ লাখ অনুসারী। ব্র্যান্ডটি যাতে যথাযথভাবে তাদের কেনাবেচা বা প্রচারণা চালাতে পারে সেজন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রভাবশালী ও শত শত ফ্রিল্যান্স কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের একটি নেটওয়ার্ক তেলি করেছে। এমভিএমটি’র কন্টেন্ট স্ট্যাটেজিস্ট বা বিষয়বস্তু কৌশলবিদ লোব্যাটো জানিয়েছেন, ‘তারা যা কিছুই করেন না কেন, সেই বিষয়বস্তু আসে তাদের হৃদয় থেকে’ শুধু এ কারণেই তাদের ব্র্যান্ডটি আজ একক ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে ও প্রতিযোগিতায় টিকে রয়েছে।

আবার এমভিএমটি গড়ে উঠেছে নানা ধরনের প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে। এর ফলে কর্মীদের মধ্যে বিশেষ করে বিষয়বস্তু নির্মাতা ও আন্যান্য নির্মাতার অংশীদারির সহযোগিতামূলক মনোভাব ও আচরণ বেড়েছে। এছাড়া ড্রপবক্স হচ্ছে এমন এক প্ল্যাটফর্ম যা কোম্পানির সব কর্মীরা ব্যবহার করতে পারছে। এর মাধ্যমে ডিজাইনের ফাইল, ছবি, ভিডিও যে কেউ চাইলেই দেখতে পারছে। এছাড়া সবকিছুই এখানে একসাথে পাওয়া যাচ্ছে। এসব কারণেই শুরু করার পাঁচ বছরের মাথায় এমভিএমটি আজ সুইস ঘড়ির ব্র্যান্ড মোভাডো’র থেকে একশো মিলিয়ন ডলার বেশি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত