প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্র সংসদ (রুকসু) নির্বাচনে ছাত্রলীগের পূর্ণ প্যানেলের জয়লাভ

হারুন-অর-রশীদ,ফরিদপুর প্রতিনিধি: দক্ষিণবঙ্গের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্র সংসদ (রুকসু) নির্বাচনে ছাত্রলীগ মনোনীত মারুফ-সজল-গোপাল পূর্ণ প্যানেল জয়লাভ করেছে। বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮ টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্নভাবে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ শহর শাখায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এবছর ২৮ হাজার ৪শত ৮০ ভোটারের মধ্যে ৬ হাজার ৪ শত ৫০টি ভোট প্রদান করে।

নির্বাচনে সহ-সভাপতি (ভিপি) নূর হোসেন মারুফ পেয়েছেন ৬০৭৯ এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের সেক মামুন পেয়েছেন ১৫৭ ভোট, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) আসিফ ইমতিয়াজ সজল পেয়েছেন ৫৯১২ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মো: জহিরুল ইসলাম পেয়েছেন ২৫৫, সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) গোপাল রায় পেয়েছেন ৫৯২২ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের ফয়সাল খাঁন পেয়েছেন ২৩৬, ক্রীড়া সম্পাদক ফাহিম বীন হাদ নীড় পেয়েছেন ৫৭৬৭ এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মো: সোহাগ মিয়া পেয়েছেন ২১৮ ভোট, ছাত্র মিলনায়তন সম্পাদক মো: নাভিদ হাসান পেয়েছেন ৫৮০৭ এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মীর সাদিক হোসাইন পেয়েছেন ২৩২, সহ-ছাত্র মিলনায়তন মো: হুমাযুন কবির পেয়েছেন ৫৭৯৪,এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের আকাশ সরকার পেয়েছেন ২৮৮, ছাত্রী মিলনায়তন সম্পাদক রাবেয়া আক্তার বৃষ্টি পেয়েছে ৫৮৫৯ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের তানিয়া আক্তার পেয়েছেন ২৭৫, সহ-ছাত্রী মিলনায়তন রোকেয়া বিনতে জাফর মিম পেয়েছেন ৫৮৫৯ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের সাজেদা আক্তার পেয়েছেন ২৭৫ ভোট, সাহিত্য ও সাংস্কৃতি সম্পাদক এস এম হাবীবুন নবী শুভ পেয়েছেন ৫৭৪৭ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মো: মিজানুর রহমান পেয়েছেন ২৫৫ ভোট, বার্ষিকী সম্পাদক চিরজ্ঞিত কুমার ঘোষ তমাল পেয়েছেন ৫৭৯১ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মো: আনিসুর রহমান পেয়েছেন ৩২০, ধর্ম ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো: মশিউর রহমান ফাহিম পেয়েছেন ৫৮৩৭ এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছাত্রদলের মো: বেখারী মোল্যা পেয়েছেন ২২০ ভোট।

এছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ছাত্রলীগের রবিউল ইসলাম রাশেদ ৫৫৯৪, মো: চয়ন মোল্লা ৫৫১৯, মীর তাসকিন আনজুম ৫৩৫৩ মো: জাকির মোল্লা ৫৩১৯, মোহাম্মাদ রিয়াদ ৫২৮০, শাহরিয়ার ইসলাম ৫১০৪ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন।

নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো: সিরাজুল ইসলাম। নির্বাচনে বাংলাদেশ ছাত্র মুক্তিজোট, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, ছাত্র ইউনিয়ন এবং একজন স্বতন্ত্র প্রাথী প্রতিদ্বন্দীতা করেন। নির্বাচনে মোট ১৭ টি পদে ৬৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করে।

নির্বাচন কমিশনার মো: সিরাজুল ইসলাম বলেন, কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত