প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সময়মতো বই ফেরত না দেয়া আমানতের খেয়ানত

আমিন মুনশি : কারো কাছ থেকে বই পড়তে নিয়ে ফেরত না দেয়া অন্যায়। অনেক সময় আমরা বন্ধু-বান্ধব বা পরিচিত কারো কাছ থেকে বই ধার নিই। নেয়ার সময় খুব অনুনয়-বিনয় করি। কিন্তু পরবর্তীতে সময়মতো ফেরত দেয়ার ব্যাপারে মোটেও আন্তরিকতা দেখাই না। ভুলে যাই অথবা ভুলে থাকার অভিনয় করি। এর মাধ্যমে যার কাছ থেকে আমরা বই পেয়েছি তার কাছে খেয়ানতকারি হিসেবে পরিচিতি পাই। নিজের সম্মান নষ্ট করি। ভবিষ্যতে অই মানুষটার কাছে নিজেকে ছোট করে রাখি।

অথচ আমানতদারিতার ব্যাপারে ইসলামে অনেক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে এটি মুমিনের বৈশিষ্ট্য। অর্থ-সম্পদ আল্লাহর রাস্তায় দান করার চেয়েও ঋণ পরিশোধের ব্যাপারে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। হাদিসে আছে, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, হজরত রাসুলুল্লাহ [সা.] বলেছেন, আমার কাছে যদি উহুদ পাহাড় পরিমাণ সোনা হয়ে যায়, তাহলে আমার জন্য এটা খুবই আনন্দের বিষয় হবে যে, তিন রাত অতিক্রান্ত হওয়ার পূর্বেই আমি এটা আল্লাহর রাহে খরচ কর ফেলব, এর কিছুই আমার কাছে অবশিষ্ট থাকবে না। হ্যাঁ, এ পরিমাণ রেখে দিতে পারি, যার দ্বারা ঋণ পরিশোধ করা যায়। (বুখারি শরিফ)

মুমূর্ষু ব্যক্তির জন্য করণীয় হলো, তার কাছে ঋণজনিত কোনো হক অনাদায়ী থাকলে তা তার ত্যাজ্য সম্পত্তি থেকে পরিশোধের জন্য ওসিয়ত করা। ইসলাম মৃতের পরিত্যক্ত সম্পত্তির ওপর উত্তরাধিকারদের যে অধিকার নির্ধারণ করে দিয়েছে সেটা অবশ্যই মৃত ব্যক্তির যদি কোনো অনাদায়ী দেনা-পাওনা থাকে তা পরিশোধ করার পর প্রাপ্য হবেন। এ ব্যাপারে সুরা নিসার ১১ নং আয়াতে বলা হয়েছে, এসবই মৃত ব্যক্তি যে ওসিয়ত করে গেছে তা দেয়ার ও ঋণ পরিশোধ করার পর। ওসিয়তের বিষয়টি ঋণের আগে উল্লেখ করার কারণ হচ্ছে এই যে, কোনো ব্যক্তির ঋণ রেখে মারা যাওয়া কোনো জরুরি বিষয় নয়, কিন্তু মৃত্যুর পূর্বে ওসিয়ত করা তার জন্য একান্ত জরুরি। তবে বিধানের গুরুত্বের দিক দিয়ে সমগ্র মুসলিম উম্মাহ এ ব্যাপারে একমত যে, ঋণের স্থান ওসিয়তের তুলনায় অগ্রবর্তী।

অর্থাৎ কোনো ব্যক্তি যদি ঋণ রেখে মারা যান, তাহলে সর্বপ্রথম তার পরিত্যক্ত সম্পত্তি থেকে তা আদায় করা হবে, তারপর ওসিয়ত পূর্ণ করা হবে এবং সবশেষে সম্পদ বণ্টন করা হবে। ঋণ যেহেতু অন্যের হক তাই পরকালীন মুক্তির জন্য এটা পরিশোধ করা অত্যাবশ্যক। তিরমিজি শরিফের এক হাদিসে আছে, হজরত আলী (রা.) থেকে বর্ণিত, হজরত নবি করিম (সা.) ওসিয়তের পূর্বে ঋণ পরিশোধ করার নির্দেশ দিয়েছেন, অথচ তোমরা আয়াতে ঋণের পূর্বে ওসিয়তের কথা পড়ে থাক। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে ঋণমুক্ত জীবনযাপনের তাওফিক দান করুন। আমিন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত