প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারত পাকিস্তানের পাল্টাপাল্টি অবস্থান আশংকাজনক পরিস্থিতির পূর্বাভাস, বললেন ড. সৈয়দ মোহাম্মদ আলী

মারুফুল আলম : কুয়ালালামপুরের মালয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. সৈয়দ মাহমুদ আলী বলেছেন, যে কোনো সামরিক অভিযানে সত্যিকার অর্থে কী ঘটে সেটা অনেকদিন পর্যন্ত স্বাভাবিকভাবে খুবই অস্পষ্ট হয়ে থাকে। তবে এটুকু বলা যায়, ভারত যেহেতু পাকিস্তানের অবিতর্কিত অঞ্চলে হামলা করেছে, পাকিস্তানেরও কোনো না কোনোভাবে পাল্টা জবাব দেয়ার সম্ভাবনা জরুরি।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইঙ্গিত দিয়েছেন, এ ঘটনার জবাব দেয়ার অধিকার পাকিস্তান রাখে। কিন্তু ভারতের মুখপাত্র বলেছেন, এটা একটা নন মিলিটারি স্ট্রাইক। এর অর্থ, ভারত ঠিক এই মুহূর্তে পাকিস্তানের সঙ্গে সরাসরি যুদ্ধে যাবার অভিলাষি নয় বলে তার ধারনা। ভারতের হামলার আগে জইশ ই মুহম্মদ সন্ত্রাসী গোষ্ঠি ভারতীয় আধা সামরিক গোষ্ঠির বিরুদ্ধে হামলা চালিয়েছে, ভারত তার পাল্টা জবাব হিসেবে পাকিস্তানভিত্তিক একটি হামলা চালিয়েছে। এই হামলা ঠিক পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নয়। কিন্তু পাকিস্তানিরা সেটা দেখবেন না। তারা এটাকে বিচার করবেন, পাকিস্তানের উপর হামলা হিসেবে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা পরিস্থিতি কতদূর পর্যন্ত যেতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জবাব, পাল্টা-জবাব, আবারো জবাব-এর মানে ঘটনা ক্রমশই জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে, যেহেতু দুটি প্রতিবেশি দেশ। দুটি দেশের পাল্টাপাল্টি এই অবস্থানকে বড় কোনো আশংকার পূর্বাভাস মনে করেন ড. সৈয়দ মাহমুদ আলী। তিনি বলেন, ভারত পাকিস্তান সীমান্ত এলাকায় লাখ লাখ মানুষের বসবাস। দুটি দেশেরই রয়েছে পারমানবিক অস্ত্র। যদিও পারমানিবক অস্ত্র আত্মরক্ষার জন্য, তবুও প্রয়োজন হলে তারা এটা ব্যবহার করতে প্রস্তুত থাকবে। দুটো দেশ কখনো এ কথা বলেনি যে, পারমানবিক অস্ত্র ব্যবহার করবো না। দুটি দেশই তাদের প্রতিরক্ষা নীতিমালায় আত্মরক্ষার কারণে এই অস্ত্র ব্যবহার করতে প্রস্তুত।

ড. মাহমুদ আলীর মতে, এই উপমহাদেশ আসলেই একটি ভীতিকর এলাকা। এ অঞ্চলে যুদ্ধ পরিস্থিতির আশংকা সবসময় থেকে যায়। উদাহরণস্বরুপ তিনি বলেন, সেই আশংকা থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন বলেছিলেন, এই উপমহাদেশ হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে ভীতিকর এলাকা। যেখানে বিশ্বযুদ্ধ শুরু হতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত