প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডাকসু নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনের মতো হলে, গণতন্ত্রের মৃত্যু হবে, বলেছেন ছাত্রদলের মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান

কেএম নাহিদ: ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান মঙ্গলবার ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের আজকের বাংলাদেশ অনুষ্ঠানে বলেন, আমরা ডাকসু নির্বাচনে এই জন্য অংশগ্রহণ করেছি। আমরা মনে করি, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের ছাত্ররা জাতির বিবেক। এই জাতীর বিবেকদের দেখাতে, এই দখলদারি সরকার ২০০৮ সালের পর থেকে এই দেশে নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। ইউনিয়ন, কর্পোরেশন থেকে শুরু করে সব জায়গায় এখন জোরজবর দখল করে নির্বাচন করা হচ্ছে। যার সর্বশেষ উদাহরণ জাতীয় নির্বাচন। ভোটের আগের রাতে ৩০/৪০ ভাগ ভোট কারচুপি করা হয়। এখানেও যদি সরকার প্রভাব ফলানোর চেষ্টা করে, তাহলে গণতন্ত্রের মৃত্যু হবে বলে আমি মনে করি।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে অনেক, জাতীয় আন্দোলনে ভূমিকা রেখেছে। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ৯০ এর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে, সাধারণ ছাত্রদের নিয়ে। আমি মনে করি এই সরকারের সব অপকর্মের জবাব এখান থেকে শুরু হবে। সেই কারচুপির জবাব, ডাকসু নির্বাচনে সাধারণ ছাত্রের যৌক্তিক অধিকার এবং স্বৈারাচার সরকারের সব অপকর্মের সমুচিত জবাবদিতে এই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, সরকারের জাতীয় নির্বাচনের মতো সরকার এই নির্বাচনকে প্রভাবিত করার জন্য। সরকার সমর্থিত কিছু কট্টরপন্থী শিক্ষক দিয়ে প্যানেল করেছে। যারা সরকারে ইচ্ছার প্রতিফলন করতে পারে। এছাড়া ২০০৮ সালের পর থেকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বিশ^বিদ্যালয়ে যে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে, যার ফলে সাধারণ ছাত্ররা আতংকিত নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কীনা। তবে সবকিছু উপেক্ষা করে এখন সাধারণ ছাত্রদের অধিকার আদায়ের জন্য জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সব ভয়কে জয় করবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত