প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোগ নির্ণয়ে ঢাকার একটি গবেষক দল ঠাকুরগাঁয়ে, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

মো.সাদ্দাম হো‌সেন, ঠাকুরগাঁও : অজ্ঞাত রোগ নির্ণয়ে ঢাকার একটি গবেষক দল ঠাকুরগাঁওয়ে এসে কাজ শুরু করেছে। ওই গবেষক দল প্রথমে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করেন।

ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, অজ্ঞাত রোগ নির্ণয়ে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬ টায় ঢাকা থেকে রোগ তত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের একটি গবেষক দল এসেছে। এই গবেষক দলের টীম লিডার ডা. মো. গাজী শাহ্ আলম সাংবাদিকদের বলেন আমরা ঘটনা স্থলে গিয়ে তত্ব-উপাত্ত ও নমুনা সংগ্রহ করে তা ঢাকায় নেয়া হবে। এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে নিশ্চিত হওয়া যাবে প্রকৃত কারণ।

ঠাকুরগাঁও ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. শাহজাহান নেওয়াজ গবেষক দল আসার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তত্ব-উপাত্ত ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ৩-৭দিনের মধ্যে রোগ সনাক্ত করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি। মাক্স ব্যবহার প্রসঙ্গে সিভিল সার্জন বলেন ভাইরাস অজ্ঞাত রোগের প্রকোপ এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে এমন আশংকায় গ্রামবাসীদের মাক্স ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনার পরেই বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুখে মাস্ক ব্যবহার করাসহ আক্রান্ত এলাকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান মাসুদ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে বলেন বুধবার থেকে ক্লাস শুরু হবে যথা নিয়মে।

সেই সঙ্গে আক্রান্ত এলাকার এক কিলোমিটারের মধ্যে অবাধে চলাচল না করার ওপর নির্দেশনা জারি করে মাইকিং করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে আক্রান্ত এলাকায় সতর্ক ভাবে চলাফেরা করতে গ্রাম পুলিশ নিয়োগ করা হয়েছে।
এছাড়া আক্রান্ত এলাকায় উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে একশ ৫০টি মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৯ ফেব্রুয়ারি তাহের আলী (৫৫) মৃত্যুবরণ করেন। এরপর তার মেয়ে জামাই হাবিবুর রহমান বাবলু(৩৫) একই ভাবে আক্রান্ত হয়ে মারা যান । জামাইয়ের মৃত্যুর সংবাদ শোনার এক রাত পরেই তাহেরের স্ত্রী হোসনে আরা বেগম (৪৫) একই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে একই রোগে আক্রান্ত হয় আবু তাহেরের দুই ছেলে ইউসুফ আলী (২৭) ও মেহেদী হাসান (২৪)। তাদের দুজনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নেয়ার পথে ইউসুফ মারা যায় এবং মেহেদী রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ২য় তলার মেডিসিন বিভাগের ৩নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় রোববার রাত সাড়ে ৯টার সময় মৃত্যুবরণ করেন।

এরপর মৃত্যুবরণ করা ইউসুফের স্ত্রী কহিনুর (৩৫) ও তার এক মাত্র সন্তান আবির(২), শ্বশুর রবিউল (৫৫), শাশুড়ী হালিমা(৪৫) অসুস্থ্য হলে তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নয়াবাড়ী গ্রামের সালমা বেগম(৩৪) কে বালিয়াডাঙ্গী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এদিকে অজ্ঞাত রোগ বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নের নয়াবাড়ী ও মরিচপাড়া গ্রামে ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় ঠাকুরগাঁও স্বাস্থ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত