প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গোয়েন্দাকাহিনি ও আলিফ লায়লা

রহমান শেলী : গোয়েন্দা কাহিনির সবচেয়ে পুরনো ও জানা দৃষ্টান্ত হলো, তিনটি আপেল, আরব্য রজনী (আলিফ লায়লা) শেহেরজাদের বলা কাহিনীগুলোর একটি। গল্পে এক জেলে দজলা নদীতে একটি তালাবন্ধ/মুখবন্ধ ভারী সিন্দুক খুঁজে পায়। সে এটি বিক্রি করে দেয় আব্বাসী খলিফা হারুনুর রশীদের কাছে। সিন্দুক ভেঙে পাওয়া যায় টুকরো টুকরো করে কাটা এক তরুণীর মরদেহ। হারুন তার উজির জাফর ইবনে ইয়াহিয়াকে নির্দেশ দেন অপরাধের তদন্ত করে ৩ দিনের মধ্যে খুনিকে খুঁজে বের করতে, না হলে জাফরের শিরñেদ করা হবে। গল্পের এগিয়ে যাবার সাথে কাহিনী বিভিন্ন দিকে মোড় নেয়, রোমাঞ্চ সৃষ্টি হয়। গল্পটিকে তাই গোয়েন্দা কাহিনীর একটি আদিরূপ বলা যেতে পারে। তবে, গোয়েন্দা চরিত্র হোমস বা পোয়ারোর মতো জাফর স্বেচ্ছায় তদন্ত করেনি। আর সাধারণত হু-ডান-ইট গল্প শেষ হয় খুনির দোষস্বীকারের মাধ্যমে। কিন্তু এ গল্পে জাফরকে আরো রহস্যের সমাধান করতে হয় যে, কে খুনের জন্যে দায়ী। ৩ দিনের মধ্যে জাফর ব্যর্থ হলেও একটি গুরুত্বপূর্ণ সূত্র আবিষ্কার করে সে শেষ পর্যন্ত যুক্তিমূলকভাবে রহস্য সমাধান করে এবং তার গর্দান বাঁচাতে সক্ষম হয়। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত