প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হিমাগার না থাকায় সবজি সংরক্ষন করতে পারছেনা নরসিংদীর কৃষকরা

জাবের হোসেন: নরসিংদীতে এবার শীতকালীন সবজির ভাল ফলন হলেও কাঙ্খিত মূল্য পাচ্ছেন না কৃষকরা। হিমাগারের অভাবে সংরক্ষণ করা যাচ্ছে না, ফলে সরবরাহ বাড়ায় কমে যাচ্ছে সবজির দাম। লাউ, শিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো কিংবা শালগম। শীতকালীন এসব সবজির বাম্পার ফলনে খুশি কৃষক। গুণগত মান ভাল হওয়ায় ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করা হয়। দেশের বাইরেও রয়েছে বড় বাজার। কিন্তু হিমাগার না থাকায় সংরক্ষণের অভাবে কাঙ্খিত মূল্য মিলছে না। ফলে বিপাকে পড়েছেন হাজার হাজার কৃষক। সময় টিভি
একজন কৃষক বলেন, শিমেও ভালো ফলন পেয়েছি, কপিতে যেটা প্রত্যাশা করেছি তার চেয়ে বেশি হয়েছে। এক সাথে যখন সকল সবজি আসে তখন আমরা এটা বিক্রি করে লাভবান হচ্ছি না। আরেক জন সবজি চাষি বলেন, বাজার কমে গেলে আমরা যদি মাত্র এক মাস বা পনেরো দিন স্টোরে রাখতে পারতাম তাহলে হয়তো বাজারটা পেতাম। কিন্তু এখানে সবজির কোন হিমাগার নাই।
পণ্য সংরক্ষণের পাশাপাশি সবজি রপ্তানির নতুন বাজারও খোঁজা দরকার বলে মনে করেন সবজি রপ্তানিকারক মোঃ আফাজ উদ্দিন। তিনি বলেন, একটু বেশি সবজি যদি রপ্তানি করতে পারতাম তাহলে হয়তো দামটা একটু বেশি পাওয়া যেতো।
কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, এবছর জেলায় ৯ হাজার ৫শ’ হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজি চায়ের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও আবাদ হয়েছে ১০ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে। কৃষি বিভাগ বলছে, আধুনিক কৃষি পদ্ধতির আওতায় ‘সবজি জোন’ কার্যক্রম বাড়াতে চায় তারা।
কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শোভন কুমার ধর বলেন, আমাদের সবজি জোনের কার্যক্রম চলছে। আমরা কৃষকদের প্রয়োজনীয় কারিগরি পরামর্শ এবং উপকরণসহ সর্বাধিক সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত