প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিমলা ও একটি বিমান ছিনতাই

প্রীতি ওয়ারেসা

আমি তখন ক্লাস টেনে। সাহিত্য পত্রিকা বের করার উদ্দেশ্যে আমার স্কুল থেকে লেখা সংগ্রহ করা হচ্ছে। এসেছে সেই পত্রিকার সাথে জড়িত সব ছেলেপুলে। তাদের কোনো এক সদস্যের হাতে আমার লেখা একটা কবিতা দিয়েছিলাম। যথারীতি একদিন পত্রিকা বের হলো। কারা যেন স্কুলে আমার নামে পত্রিকার পনেরো কপি দিয়ে গেছে। ক্লাস টিচার যাকে আমি যমের মতো ভয় পাই তিনি আমাকে টিচার্স রুমে ডেকে পত্রিকাগুলো হাতে ধরিয়ে দিলেন। গভীর দৃষ্টিতে আমারদিকে তাকিয়ে জিজ্ঞাসা করলেন, তুমি কি পত্রিকার এজেন্ট নাকি? বললাম, নাহ!

ক্লাসে যাওয়ামাত্র বন্ধুরা পত্রিকা কাড়াকাড়ি করে নিয়ে নিলো। আমার কবিতা কেউ পড়লো কিনা জানিনা, তবে একটা কবিতা সবাই চোখ লাগিয়ে পড়লো সেটা ছিলো- ‘প্রীতির স্মৃতি’। কবিতার বর্ণনানুযায়ী এক বাক্যে সবাই বুঝে গেলো কবিতাটা আমাকে নিয়েই লেখা হয়েছে। সবার কৌতূহল আমি উড়িয়ে দিলাম-আরেহ ধুর, প্রীতি নামের কি আমি একা নাকি! আমি সেই কবিতারচয়িতাকে চিনি না। লেখার আগে তো কখনোই না এবং পরবর্তী চার বছরের মধ্যেও সেই ভদ্রলোক আমার চোখের সামনে আসেননি। সিমলা ও একটি বিমান ছিনতাই। আমাদের সময়-এই সময়; জেনারেশন গ্যাপ! ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত