প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিমলা বললেন, অসুস্থ পলাশের জীবনযাপনেও সুস্থতা ছিলো না (ভিডিও)

মো. তৌহিদ এলাহী : সম্প্রতি বিমান ছিনতাই নিয়ে আলোচিত নিহত পলাশ আহমেদকে নিয়ে সোমবার রাতে একাত্তর টিভির সংবাদযোগে কথা বলেছেন চিত্রনায়িকা সিমলা। তিনি বলেন, তার নাম যে আসলে পলাশ, তা আমি তার পরিবার ও পাসপোর্ট থেকে জানতে পেরেছি। তিনি অবশ্য নিজেকে মাহী বি জাহান হিসেবে পরিচয় দিতেন। আমি প্রথমে তাকে একজন প্রোডিউসার হিসেবে চিনতাম।

সিমলা বলেন, ২০১৬ সালে তার সাথে আমার পরিচয় হয় একটি জন্মদিনের অনুষ্ঠানে। ২০১৮ সালের ৩ মার্চ তাকে আমি বিয়ে করি এবং ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে আমাদের ডিভোর্স হয়। তার সাথে আমার শেষ দেখা হয় গত কোরবানী ঈদের দুই সাপ্তাহ আগে। আর এরপরে তার সাথে আর আমার কোনো কথা হয় নি। সিমলা বলেন, তার যে বিভিন্ন নাম আছে এবং এক এক নামের যে এক এক চরিত্র এই বিষয়গুলোও আমি জানতাম না। তার অর্থের উৎসের বিষয়ে আমি তেমন কিছু বলতে পারবো না। কেননা একজন স্বামী-স্ত্রী যেভাবে সংসার করে থাকেন, এবং নিজেরা যেভাবে অর্থ খরচ করে থাকেন আমরা সেভাবে সংসার করিনি। তার অর্থের উৎসের বিষয়ে আমি বলতে পারবো না। আমি আমার টাকা দিয়েই চলতাম। স্বামীর টাকা নিয়ে চলতে হবে এমন ধ্যান-ধারণা আমার ছিলো না।

সিমলা বলেন, তার মানসিক কিছু সমস্যা ছিলো বলে আমার মনে হয়েছে। তিনি আসলে মানসিকভাবে সুস্থ ছিলেন না। তিনি বিবাহিত ছিলেন এটাও আমি অনেক পরে জেনেছি। তার কথা আর কাজে কোন মিল ছিল না । তিনি দেশের বাইরে খাকেন এবং সেখানেই কাজ করেন বলে জানতাম তবে তার পাসপোর্টে বাইরের দেশের ভিসা দেখিনি । আর এ বিষয়গুলি প্রমাণ করে যে তিনি আসলে সুস্থ ছিলেন না । তিনি আমার থেকে কখনো টাকা পয়সা নেননি আমিও নেইনি,তাই অর্থনীতির ব্যপারটা সেরকম ক্লিয়ার ছিলনা ।

তার সাখে কোন সন্ত্রাসি গোষ্ঠির সম্পৃক্ততার বিষয়টি আমার জানা নেই । তার কোন ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে আমি চিনি না বা দেখিনি। আমার আগে তিনি আরেক জনকে বিয়ে করেছেন জানার পর আমি তাকে ডির্ভোস দেই । তার আগের ঘরে স্ত্রী ও একটি ছেলে আছে । এটা বিয়ের অনেক পরে জানতে পারি । তারা থাকেন বগুড়াতে। আমি তাদেরকে দেখিনি ।

সিমলা আরো বলেন, ‘এটা হাস্যকর যে আমার প্রেমে ব্যর্থ হয়ে সে বিমান ছিনতাইয়ের মত ঘটনা ঘটিয়েছে । আমি দ্বিধান্বিত যেহেতু ওনার আরেকজন স্ত্রী আছেন।‘ তিনি কোন স্ত্রীর সাথে বলতে কথা বলতে চেয়েছেন এটা তিনিই ভাল বলতে পারবেন । বিচ্ছেদের পর তিনি যোগাযোগ করতে চেয়েছেন কিন্তু আমি কল রিসিভ করিনি । আমাকে ভয় দেখানোর মতো সাহস তিনি দেখাতে পারেনি । পলাশের পরিবারের অন্য সদস্যরা মাটির মানুষ। তাদের সাথে আমার দেখা হয়েছে। তিনি আমাকে কোনরকম প্রলোভন দেখিয়ে বিয়ে করেননি বরং আমিই তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলাম। তবে তিনি বলেছিলেন যে তিনি অবিবাহিত। সূত্র: একাত্তর টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত