প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে সিটি নির্বাচনের সব প্রচারণা বন্ধ, যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

শাকিল আহমেদ: মঙ্গলবার রাত ১২টার পরে শেষ হচ্ছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপ-নির্বাচন এবং ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ দুই সিটির সঙ্গে যুক্ত হওয়া নতুন ৩৬টি ওয়ার্ডের সব ধরনের নির্বাচনি প্রচারণা।

২৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টায় শুরু হবে সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। নির্বাচনের ৩২ ঘণ্টা আগে থেকে সকল ধরনের প্রচার-প্রচারণা বন্ধ রাখার বিষয়ে বাধ্যবাধকতা থাকায় মঙ্গলবার রাত ১২টার পর কোনো প্রার্থী মাঠে থাকতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন। এছাড়া আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আজ সকাল থেকে ৫০ জন ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নামার কথা রয়েছে। একইসঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১১ ধরনের যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচনে লড়ছেন পাঁচ প্রার্থী। এরমধ্যে নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির প্রার্থী শাফিন আহমেদ লড়ছেন লাঙল প্রতীক নিয়ে, এছাড়া (স্বতন্ত্র প্রার্থী) আব্দুর রহিম টেবিল ঘড়ি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আনিসুর রহমান দেওয়ান আম ও প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টির শাহীন খান বাঘ প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। এছাড়া কাউন্সিলর পদে উত্তরে লড়ছেন ১২৪ জন ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১২৫ জন প্রার্থী।

যে সকল যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা : ঢাকা সিটি নির্বাচন উপলক্ষে ১১ ধরনের যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে নির্বাচন কমিশন। এরমধ্যে কাল বুধবার মধ্যরাত (১২টা) থেকে নির্বাচনের দিন মধ্যরাত পর্যন্ত ১০ ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। আর আজ মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে পহেলা মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত মোটর সাইকেল চলাচল বন্ধ থাকবে। অপর ১০ ধরনের যানবাহন হলো- বেবিট্যাক্সি, অটোরিক্সা, ইজিবাইক, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পো, ইজিবাইক এবং স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন যন্ত্রচালিত যানবাহন।

তবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, পরিচয়পত্রসহ দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক, পরিচয়পত্রসহ দেশি-বিদেশি সাংবাদিক, নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক এবং কিছু জরুরি কাজ যেমন অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক ও টেলিযোগাযোগ- কাজে নিয়োজিতদের জন্য যানবাহনে নিষেধাজ্ঞা শিথিল থাকবে বলেও জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আনিসুল হক মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেয়র আনিসুল হক মারা যান। এরপর ৪ ডিসেম্বর মেয়রের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। এর ফলে ৯০ দিনের মধ্যে আরেকটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা তৈরি হয়েছিল। আইন অনুযায়ী গত বছরের ৯ জানুয়ারি এ পদে উপনির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। এছাড়া উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে যুক্ত হওয়া ৩৬টি ওয়ার্ডে নির্বাচনের কথা ছিল একই বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি। এর বিপক্ষে উচ্চ আদালতে রিট করা হলে ডিএনসিসি নির্বাচনের তফসিলের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন। পরবর্তীতে আরও ছয় মাসের জন্য নির্বাচন কার্যক্রম স্থগিত করেন আদালত। এরপর চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি এই নির্বাচনের স্থগিতাদেশ ও রুল খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট। এরই প্রেক্ষিতে ২২ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উপ-নির্বাচন তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত