প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডাকসু নির্বাচন এবং ‘ছাত্রলীগ সভাপতিকে নেত্রীদের তেঁতো প্রশ্ন’

আলী রীয়াজ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংসদÑ ডাকসুর নির্বাচন অত্যাসন্ন। ২৮ বছর পরে নির্বাচন হচ্ছে। এই নির্বাচন হওয়ার কথা প্রতি বছর। এই নিয়ে আদালত-আন্দোলন-অনশন অনেক কিছুই হয়েছে। বাংলাদেশের রাজনীতি বিষয়ে উৎসাহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী এবং দুই দফা ডাকসুতে সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হবার অভিজ্ঞতার কারণে ডাকসু নির্বাচন বিষয়ে আমার আগ্রহ রয়েছে। ফলে এই নিয়ে খবর দেখলে পড়ি। খানিকটা স্মৃতিতাড়িত হই না এমন বললে সঠিক বলা হবে না। আজ (২৪ ফেব্রুয়ারি) এ ধরনের একটি সংবাদ দেখে বারবার পড়লাম। প্রথম আলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির শিরোনাম, ‘মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগ সভাপতিকে নেত্রীদের তেঁতো প্রশ্ন’। ছাত্রলীগ ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গ সংগঠন। তাদের আপত্তির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অন্য সংগঠনগুলোর দাবি উপেক্ষা করেছে যে, ভোটকেন্দ্র যেন হল-এ না হয়ে একাডেমিক ভবনে হয়। প্রতিবেদনের যে বাক্যগুলো আমার মনোযোগ আকর্ষণ করেছে তা ওই সংগঠনের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তারপরেও তাতে বাংলাদেশের রাজনীতি ও ছাত্র রাজনীতির একটা ছবি পাওয়া যাচ্ছে বলেই মনে হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ‘নারী নেত্রীরা বলেন, সংগঠনের প্রধান শোভন তাদের বলেছেন, হল-এ যাদের জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতা আছে, গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খোঁজখবর নিচ্ছেন? গোয়েন্দা রিপোর্টে যারা জনপ্রিয় হবেন, যারা হলে পরিচিত মুখ, তারাই প্যানেলে থাকবেন’? ছাত্রলীগের নারী নেত্রীদের এই কথা যে তাদের ধারণা তা নয়, ছাত্রলীগের সভাপতিও সেই কথাই বলেছেন। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ‘জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী বলেন, ছাত্রলীগের প্যানেল নির্ধারণে গোয়েন্দা তথ্যই মূল বিবেচনার বিষয়।’ ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত