প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আগের তুলনায় ব্যাথা কিছুটা বেড়েছে : আব্দুল জলিল

শিমুল মাহমুদ : সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসক। রোববার বিকেল তিনটার দিকে এই পাচঁ চিকিৎসক পুরান ঢাকায় অবস্থিত কারাগারে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে চান।

এক ঘণ্টার বেশি সময় কারাগারে চিকিৎসকরা খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন।চিকিৎসা শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ আব্দুল জলিল চৌধুরী প্রতিবেদকে জানান, বেগম জিয়ার হাত, হাটু ও কোমড়ের ব্যাথা আগের তুলনা কিছুটা বেড়েছে।

তিনি বলেন, মানুষ অবসরে থাকলে, মুভমেন্ট কম হলে বাতের ব্যাথা,  কোমরে ব্যথা, হাটু ব্যাথা এটা হয়ে থাকে। এক্টিভেটিস থাকলে এটা কম হয়। এই ব্যথা গুলো সকালে বাড়লে বিকেলে কম থাকে। উনারো একি। তাছাড়া উনি যেহেতু অন্তরীন, তাই ব্যথাটা একটু বেশী বেড়েছে।

বেগম জিয়ার জরুরী কোনো চিকিৎসার প্রয়োজন আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি হচ্ছেন পুরনো রোগী তার জরুরী চিকিৎসার প্রযোজন নেই। তিনি নিয়মিত ঔষদ খাচ্ছেন কিনা বুঝতে পারছি না। উনার কাছে ডায়বেটিস টেস্টেও মেশিন আছে। ডায়বেটিস কন্ট্রোলে আছে কিনা করলেও কে করেন কিছুই বুঝা যাচ্ছে না।

পাঁচ সদস্যের এই চিকিৎসকদের দলে ছিলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ আব্দুল জলিল চৌধুরী, রিউমাটোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাক্তার শামীম আহমেদ, কার্ডিওলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাক্তার তানজিলা পারভিন, ফিজিক্যাল মেডিসিন এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাক্তার বদরুন্নেসা আহমেদ এবং অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার চৌধুরী ইকবাল মাহমুদ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত