প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীর অনুদান ৫০ হাজার টাকা করে পেলেন চূড়িহাট্টায় অগ্নিদগ্ধ ১১জন

সমীরণ রায়: চকবাজারের চূড়িহাট্টায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী অগ্নিদগ্ধ ১১ জনকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদানের টাকা হস্তান্তর করা হয়েছে।

রোববার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের কনফারেন্স রুমে রোগী ও তাদের স্বজনদের হাতে এ টাকা তুলে দেন বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দীন। অনুদান হিসেবে প্রত্যেক রোগীর পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন, ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দীন ও বার্ন ইউনিটের পরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ। এর আগে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ঢামেকের বার্ন ইউনিটে দগ্ধ রোগীদের দেখতে আসেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বার্ন ইউনিটের ৯ জন ও অন্য ইউনিটের দুই জন রোগীর পরিবারকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে। বার্ন ইউনিটের রোগী হেলাল নিজে টাকা গ্রহণ করেন। এছাড়া রোগী আনোয়ারের স্ত্রী হাজেরা বেগম, মাহমুদুলের স্ত্রী পারভিন আক্তার, রেজাউলের মা হোসনে আরা বেগম, সোহাগের মা বেদানা বেগম, জাকিরের স্ত্রী খদেজা বেগম, মোজাফ্ফরের স্ত্রী রেনু বেগম, সেলিমের মা তাসলিমা বেগম ও সালাউদ্দীনের মা সুবর্ণা আক্তার অনুদানের টাকা গ্রহণ করেন। এছাড়া অন্য ইউনিটে ভর্তি রবিউলের বাবা আব্দুল মজিদ ও কাওসারের মা রাশেদা বেগম টাকা নেন।

এ সময় সামন্ত লাল সেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজে প্রত্যেক রোগীকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন। এ টাকা পরিবারের জন্য খরচ করতে বলেছেন। রোগীদের চিকিৎসা ও ওষুধ খরচ হাসপাতাল থেকেই দেওয়া হবে।

মোস্তফা জালাল মহিউদ্দীন বলেন, প্রধানমন্ত্রী এমন পরিস্থিতে নিজেকে স্থির রাখতে পারেন না। নিমতলীর ঘটনায় আপনার দেখেছেন, তিনি জেগে থেকে সবার খোঁজ নিয়েছেন। এ ধরনের ঘটনা কারও কাম্য নয়। প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে পুরান ঢাকা থেকে সব কেমিক্যাল কারখানা সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত