প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আম বাগানে পোকার আক্রমণ চিন্তিত কৃষক

মঞ্জুর মোর্শেদ : আম গাছে মুকুল দেখা দিয়েছে। মুকুলের মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত চারিদিক। আবার কোনো কোনো গাছে মুকুল থেকে দেখা দিয়েছে আমের গুটি। এখন আমের বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন নওগাঁর আম চাষিরা। তবে মুকুলে হফার পোকার আক্রমণে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন চাষিরা। জাগো নিউজ

চাষিরা বলছেন, গত বছর আমের উৎপাদন ভালো হলেও ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এ বছর ন্যায্য দাম পেতে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন তারা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, এবছর জেলায় ১৮ হাজার ৫২৭ হেক্টর জমিতে আম বাগানের চাষ করা হয়েছে।

বরেন্দ্র এলাকা হিসেবে খ্যাত জেলার সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর এবং পত্নীতলা উপজেলার কিছু অংশ। এলাকার জমিতে বছরের একমাত্র ফসল বৃষ্টিনির্ভর আমন ধান। পানিস্বল্পতার কারণে এসব এলাকার জমি বছরের বেশিরভাগ সময় অনাবাদি পড়ে থাকে। ফলে এ এলাকার কৃষকরা এখন ধান ছেড়ে আম চাষে ঝুঁকেছেন। প্রতি বছর প্রায় ২ হাজার হেক্টরের অধিক জমিতে আম বাগান গড়ে উঠছে। আম্রপালি, আশ্বিনা, খিরসা, মল্লিকা, হাড়িভাঙা ও ন্যাংড়াসহ কয়েকটি জাতের আম চাষ হচ্ছে।

আম চাষি তসলিম উদ্দিন বলেন, ‘প্রায় ৫০ বিঘা জমিতে বিভিন্ন জাতের আম বাগান আছে। গাছে মুকুল থেকে গুটি আসার উপক্রম হয়েছে। তবে হফার পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। পোকা দমনে কীটনাশক স্প্রে করা হচ্ছে। এতে পোকা দূর হয়ে যাবে এবং মুকুলের কোন ক্ষতি হবে না। কিছুদিন আগে সামান্য যে বৃষ্টি হয়েছে, এতে আম চাষিদের উপকার হয়েছে। একটু বেশি বৃষ্টি হলে একসাথে ঝেড়ে মুকুল বের হতে পারতো।’
আম চাষি ওমর আলী বলেন, ‘বরেন্দ্র এলাকায় পানির সংকট। যার কারণে প্রতি বছরই বাড়ছে আমের বাগান। এঁটেল মাটি হওয়ায় এ এলাকার আমও বেশ সুস্বাদু। ধান থেকে আমে লাভজনক।’

আবু ইউসুফ বলেন, ‘প্রায় ১৫ বিঘা জমিতে আম্রপালি ও আশ্বিনাসহ কয়েকটি জাতের আম বাগান আছে। তবে সিন্ডিকেটের কারণে চাষিরা পাকা আমের ন্যায্য দাম পাওয়া থেকে বঞ্চিত হন। আগামীতে মৌসুমে দামের ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।’

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপপরিচালক মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘উঁচু বরেন্দ্র ভ‚মি এলাকায় ধান চাষ না হওয়ায় প্রতি বছরই আম বাগান বাড়ছে। হফার পোকার আক্রমণ দেখা দেয়ায় কৃষকরা কীটনাশক স্প্রে করছেন। আম মটরদানার মতো হলে হফার পোকা এবং ছত্রাকজনিত মোড়ক রোগ দমনে কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত