প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বলেই যে শামীমা অবাধে বাংলাদেশে আসতে পারবে এমনটি নয়, বললেন ড. দেলোয়ার হোসেন

সৌরভ নূর : আইএসে যোগ দেয়া ব্রিটিশ নাগরিক শামীমা বেগম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হওয়াই ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিলের ঘোষণার সাথে আলোচনায় জড়িয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। এ ব্যাপারে বিশ্লেষকদের মিশ্র প্রতিক্রিয়াও দেখো যাচ্ছে বিভিন্ন বক্তব্যে। যদিও বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে শামীমা বেগম কোনোভাবেই বাংলাদেশি নাগরিক নন। অন্য এক বক্তব্যে সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন জানিয়েছেন, শামিম চাইলে তার বাংলাদেশে আসতে কোনো আইনি বাধা নেই। এ প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক ড. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ব্রিটিশ সরকার মনে করছে বাংলাদেশেও শামীমার হয়তো নাগরিকত্ব রয়েছে, তাই বাংলাদেশের প্রসঙ্গ আসছে। কিন্তু আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন। বাংলাদেশের সাথে শামীমার নাগরিকত্বের কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি চাইলে আসতে পারে তবে তাকে বৈধ কাগজপত্র নিয়ে আসতে হবে। এছাড়া একজন চিহ্নিত টেররিস্টকে বাংলাদেশ স্বাগতম জানাবে এটা হতে পারে না। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বলেই যে সে অবাধে বাংলাদেশে আসতে পারবে এমনটিও নয়। ব্রিটিশ সরকারও আনষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশকে কোনো কথা বলেনি। এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, আইএসআই সংগঠনে এখনো শত শত শামীমা রয়েছে, এর মধ্যে অনেকেই ফিরে আসছে। সেরকম একজন শামীমাও ফিরে আসতে চায়, কিন্তু ব্রিটিশ সরকার তার নাগরিকত্ব বাতিল করেছে। আবার ব্রিটিশ মানবাধিকার কর্মীরা প্রতিবাদ করছে। এভাবে শামীমার নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত ব্রিটিশ সরকারের ভুল হচ্ছে বলে তারা মন্তব্য করছে। মানবাধিকার কর্মীরা দাবি করছে সেখানে শামীমার একটি শিশু সন্তান আছে। তাদের উভয়ের জীবনের যথেষ্ট ঝুঁকি রয়েছে তাদের ফিরে আসতে না দেয়া মানবাধিকার লঙ্ঘনের শামিল হবে। তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে তবে তার শাস্তি নিশ্চিত করা হোক। তবে এ ব্যাপারে বাংলাদেশের করণীয় কিছু নেই বলে মনে করেন ড. দেলোয়ার হোসেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত