প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দাম কমছে না ডিম-মাছ-মুরগির

রমজান আলী : সবজিতে সস্তি রয়েছে রাজধানীর কাঁচাবাজার। উৎপাদনের সঙ্গে সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকায় বাজারে মাত্র ১০ থেকে ২০ টাকায় মিলছে বেশির ভাগ সবজি। তবে সাধারণ মানুষকে ভোগাচ্ছে ডিম-মাছ আর মুরগির দাম।

শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর মানিকনগর কাঁচাবাজার, শান্তিনগর বাজার, ভাসানটেক, ধামালকোট এবং কচুক্ষেত বাজার ঘুরে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। এ সময় বিক্রেতাদের মুখে হাসি থাকলেও ক্রেতাদের তেমন হাসি মিলেনি। ৯০ টাকা ডজনের ডিম এখন ১০৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্রয়লার মুরগির কেজি কেনা যাচ্ছে ১৫০ থেকে ৬০ টাকা। পাকিস্তানি মুরগির কেজি ২৬০ থেকে ২৮০ টাকা।

বাজারগুলোতে গরুর ও খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। গরুর মাংস আগের মতোই ৫০০ টাকা কেজি, খাসির মাংস ৬৫০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি। মাছ ও মাংসের দাম চড়া হলেও শাক-সবজির বাজার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ভালো জাতের পেঁয়াজ ২০ টাকা এবং নতুন আলুর দাম ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

গত কয়েক মাস ধরে বাজারে সব থেকে দামি সবজি তালিকায় রয়েছে ছোট আকৃতির উস্তা। এক কেজি উস্তা বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৪০ টাকায়। বাজার ও মানভেদে বড় করলার কেজি ৬০ থেকে ৭০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। কেজি ১৫ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে বেগুন, শালগম, মুলা ও পেঁপে। বিচিবিহীন শিম বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা কেজি। ফুলকপি ১৫ থেকে ২০ টাকা পিস এবং বাঁধাকপি ১৫ থেকে ২০ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে এ সবজি দুটির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। পালং শাক বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকা আটি, লাল ও সবুজ শাকের দাম একই। লাউশাক পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায় আটি।

মানিকনগর কাঁচাবাজারে রহিম নামে এক ক্রেতা বলেন, সব কিছুর নাম ঠিক থাকলেও ডিম ও মুরগি দাম বেড়েছে। মাছের দাম যা আছে তা মোটামুটি।

ভাসানটেক বাজারের সবজি ব্যবসায়ী খালেক বলেন, চাহিদা সরবরাহ দু-ই ভালো। যে কারণে সবজির দাম নাগালের মধ্যে। আগামী দু-এক মাস সবজির বাজার এমনটিই থাকবে বলে মনে করছেন এই ব্যবসায়ী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত