প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এভাবেই কি পুড়ে মরবে সাধারণ মানুষ?

রাশেদা রওনক খান : বিদেশের মাটিতে বসে যখন দেশের এই সর্বনাশী আগুণের খবর শুনছিলাম, চুপ হয়ে বসেছিলাম অনেকক্ষণ। একদিকে এসেই বারমিংহাম মিশনের একুশের আয়োজন, অন্যদিকে এইমাত্র ছেড়ে আসা দেশের এই সর্বনাশা খবর-দুইয়ে মিলে যেন কিংকর্তব্যবিমুঢ়।

ভাবছিলাম, নিমতলি ট্রাজেডি হতে আমাদের কোনো শিক্ষা হয়নি, চকবাজার হতেও হবে না হয়তো। এভাবেই কি পুড়ে মরবে সাধারণ মানুষ? আমাদের বিবেকবোধ জাগ্রত হউক, দায়িত্ববোধ প্রবল হউক, টাকা তৈরির কারখানার চেয়ে মূল্যবান হউক মানবিক মূল্যবোধ তৈরির কারখানা!

যারা এই দাবানলে পুড়ে চলে গেলেন, তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। যারা বেঁচে আছে, তাদের পাশে দাঁড়ানোর মতো আমাদের সমাজে প্রচুর বিত্তবান আছেন (পত্রিকা মারফত শুনেছি, অতি বিত্তবানদের সংখ্যা বাড়ছে আমাদের দেশে)। আশা করছি, তারা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াবেন। আর আমাদের কাজ হতে পারে, এই দাঁড়ানোর প্রক্রিয়াটা তৈরি করে দেয়া কিংবা দেখিয়ে দেয়া। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোঢ় এই শোক সইবার মতো শক্তি অর্জনে আমরা পাশে দাঁড়াই। অন্যদিকে রাষ্ট্রযন্ত্র যেন এই শোক হতে শিক্ষা নিয়ে পরিকল্পিত নগরী গড়ে তোলার প্রক্রিয়া শুরু করে, এই চাওয়া টুকু রইল। ভালো থাকুক আমার দেশ, ভালো থাকুক আমার দেশের মানুষ, ভালো থাকি আমরা সবাই। লেখক : ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত