প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সেলিনা হোসেন বললেন, উন্নয়নশীল ছোট দেশের মাতৃভাষা অর্থনৈতিক কারণে বিশ্বের দরবারে পৌঁছতে পারে না

নাঈমা জাবীন : কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন বলেছেন, দেশের সব ক্ষেত্রে ভাষার অবমাননা চলছে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যোগাযোগের জন্য ইংরেজি ভাষার বিকল্প নেই। এটি নিয়ে কেউ প্রশ্ন করে না। সবাই বুঝে গেছে যে ইংরেজি ভাষা লাগবে। সূত্র : কালের কণ্ঠ
তিনি বলেন, কোথাও কোথাও বোঝাটা বেশি হয়ে যায়। টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে ইংরেজি নাম রেখে অনুষ্ঠান করার প্রয়োজন আছে কি? কার স্বার্থে? যদি বিদেশিদের জন্য অনুষ্ঠান করতে চান কিংবা শিক্ষার্থীদের জন্য কোনো অনুষ্ঠানের দরকার হয়, তাহলে সুন্দরভাবে ইংরেজি ভাষায় অনুষ্ঠান করুন। শিক্ষার্থীরা যেন বুঝতে ও শিখতে পারে সেটি দেখুন। কিন্তু বাংলার সঙ্গে ইংরেজি মিশিয়ে জগাখিচুড়ি বানানোর অর্থ কী? ছেলে-মেয়েরা উচ্চারণ করে হ্যালো ভিউয়ার কিংবা হ্যালো লিসেনার্স-এর ফলে কি খুব স্মার্ট হয়ে যায় ওরা! উল্টো না শেখে ইংরেজি, না শেখে মাতৃভাষা। সুপ্রিয় দর্শক, সুপ্রিয় শ্রোতা কি খুব খারাপ সম্বোধন? বেশির ভাগ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা সঠিকভাবে বাংলা ভাষা শিখতে ও পড়তে পারে না। আইনজীবীদের মুখেই শোনা যায় বাদী বা বিবাদীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য দাখিল বা পেশ করার জন্য বাংলা ভাষা ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না। এ অবস্থা দেশের অন্য অনেক ক্ষেত্রে চলছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা বলে থাকি, ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ। আমরা যুদ্ধ করে, জীবন দিয়ে স্বাধীন দেশ লাভ করেছি। এখন প্রশ্ন, বাংলাকে আমরা কতটা রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দিতে পেরেছি? আমাদের অমর একুশে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তার পরও দেশের ভেতরে ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়নি। অন্য কথায়, প্রতিষ্ঠিত করতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি। এ কথা অনেকেই জানে, উন্নয়নশীল ছোট দেশের মাতৃভাষা অর্থনৈতিক কারণে বিশ্বের দরবারে পৌঁছতে পারে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত