প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চকবাজারে নিহতদের স্মরণে দেশব্যাপী মসজিদে মোনাজাত ও মন্দিরে প্রার্থনা

মুহাম্মদ নাঈম : রাজধানীর চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত, শান্তি এবং আহতদের আশু আরোগ্য কামনায় বায়তুল মোকারমের খতিবসহ সারাদেশের মসজিদে-মসজিদে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। একই ঘটনায় নিহতদের আত্মার শান্তি কামনায় রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরসহ দেশের বিভিন্ন মন্দির, গীর্জা ও প্যাগাডাতেও করা হয় বিশেষ প্রার্থনা।

শুক্রবার বাদ জুমা বঙ্গভবন জামে মসজিদে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব, প্রেস সচিবসহ বঙ্গভবনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন। একই দিন ঘটনাস্থল চকবাজারের পাশে অবস্থিত চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদেও বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি এবং আহতদের আশু সুস্থতা কামনায় হাজার হাজার মুসল্লি অংশ নেন। বাদ জুমা মসজিদের খতিব মোনাজাত শুরু করতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন আগত মুসল্লিরা। এসময় সেখানে স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী সেলিমসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। পুরান ঢাকার চকবাজারের আগুনের ঘটনায় তদের জন্য জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ সারাদেশে দোয়া ও গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জুমার নামাজের পর বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের দক্ষিণ চত্বরে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গায়েবানা জানাজা পরিচালনা করেন মাওলানা আবদুল হালিম সিরাজী।

এর আগে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। চকবাজারের চুড়িহাট্টায় আগুনের ঘটনায় মৃতদের আত্মার মাগফিরাত কামনাসহ আহতদের দ্রুত আরোগ্য লাভের প্রার্থনা করা হয় মোনাজাতে। পাশাপাশি শোকসন্তপ্ত পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনদের শোক কাটিয়ে ওঠার জন্য মোনাজাত করা হয়। এ সময় দেশের শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মহিউদ্দিন কাসেম। গায়েবানা জানাজা ও বিশেষ মোনাজাতে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ, ধর্মসচিব মো. আনিছুর রহমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব কাজী নূরুল ইসলাম, পরিচালক মুহাম্মদ মহীউদ্দিন মজুমদার, পরিচালক ড. মোহাম্মদ হারুনূর রশীদসহ বিপুল সংখ্যক মুসল্লি অংশ নেন। এছাড়াও ধানমন্ডি, জিগাতলা, কলাবাগান, শংকর ও হাজারীবাগের বিভিন্ন মসজিদেও বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। জিগাতলা গাবতলা মসজিদের ইমাম জুমার নামাজের পর মোনাজাতে সবাইকে চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে নিহতদের জন্য সবাইকে দোয়া করতে বলেন।
এদিন দুপুরে ঢাকেশ্বরী মন্দির, রমনা কালী মন্দির, সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরসহ ফার্মগেইট ও ইস্কাটনের খ্রীস্টানদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গীর্জায়ও বিশেষ প্রার্থণা করা হয়।

গত বুধবার রাতের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১১০ জন পুড়ে মারা যায়। চকবাজারের নন্দকুমার দত্ত রোডের শেষ মাথায় চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পাশে ৬৪ নম্বর হোল্ডিংয়ের ওয়াহিদ ম্যানশনে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আবাসিক ভবনটিতে কেমিক্যাল গোডাউন থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত