প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তিন সদস্যের কমিটি গঠন
বিস্ফোরক পরিদফতর বলছে, অগ্নিকাণ্ডে সম্ভাব্য কারণ তিনটি

সুজন কৈরী : চকবাজারের চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থাল পরিদর্শন করেছে বিষ্ফোরক পরিদফতরের কর্মকর্তারা। শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তারা।

এরপর সাংবাদিকদের বিস্ফোরক পরিদফতরের প্রধান পরিদর্শক শামসুল আলম বলেন, আমরা ঘটনাস্থল থেকে অনেক ক্লু পেয়েছি। ধারণা করা হচ্ছে তিনটি কারণে আগুন লাগতে পারে। কারণগুলো হচ্ছে- ট্রান্সফরমার, গ্যাস সিলিন্ডার অথবা কেমিক্যাল বিস্ফোরণের পর শর্ট সার্কিট বা যেকোনো ভাবে আগুন ধরে যেতে পারে।

তিনি বলেন, কমিটি কাজ করছে। যদি ট্রান্সফরমার বা সিলিন্ডার বিষ্ফোরণের বিষয়ে আলামত পাওয়া যায়, তাহলে সেই অনুযায়ী যে কোনো একটাকে শনাক্ত করে আগুনের সূত্রপাতের বিষয়ে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হবে। আর না পাওয়া গেলে এ দুটি বিষয় বাদ দিয়ে ভিন্নভাবে তদন্ত করে দেখা হবে।

এছাড়া আগুনের ব্যাপকতার বিষয়ে তিনি বলেন, কেন আগুন এত ব্যাপক হলো, কেন আগুনটি দ্রুত সময়ে নিয়ন্ত্রণ করা গেলো না এ বিষয়টিও তদন্তাধীন রয়েছে।

পরিদর্শক শামসুল আলম বলেন, আমরা কয়েকটি গাড়ি চেক করেছি। অনেকেই দুর্ঘটনাস্থলে থাকা যেই পিকআপটির সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুনের সূত্রপাতের কথা বলেছিল। আমরা সিলিন্ডারের বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দেখা গেছে এই এলাকায় বেশ কিছু কেমিক্যালের দোকান রয়েছে। তাছাড়া ওয়াহিদ ম্যানশনের নিচে কিছু প্লাস্টিকের দানার দোকান ছিল। এ কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েতে পারে। শামসুল আলম বলেন, আমরা যে সিলিন্ডারের লাইসেন্স দেই সেটি আবাসিক ও বাণিজ্যিক দুই কারণেই দেই। কিন্তু কোন এলাকায় কী পরিমাণ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রি থাকবে সেটা আমাদের দেখার বিষয় নয়। সেটি দেখে রাজউক।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিস্ফোরক পরিদফতর থেকে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরিদফতরের প্রধান পরিদর্শক শামসুল আলমকে প্রধান করে কমিটিটি গঠিত হয়েছে। বাকি দুই সদস্য হলেন পরিদর্শক মুনীরা ইয়াসমিন ও তোফাজ্জল হোসেন। কমিটিকে আগামী সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত