প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অপহরণের ৩ দিন পর শিশু উদ্ধার, অপহরণকারী আটক

সুজন কৈরী : রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে অপহৃত ৭ বছরের শিশু মোহাম্মদ আল আমিনকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে অপহরণকারী মো. রুহুল আমিনকে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সদরঘাটের ১ নম্বর পল্টুন বরিশালের লঞ্চ টার্মিনাল এলাকা থেকে রুহুলকে আটক ও তার কাছ থেকে শিশু আল আমিনকে উদ্ধার করে পিবিআই ঢাকা মেট্রো। এ সময় রুহুল আমিনের কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোন, ৪টি সিম ও মুক্তিপণ হিসেবে শিশুর বাবার কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে নেয়া সাড় ৬ হাজার টাকার মধ্যে ৫হাজার ৮শ’ টাকা জব্দ করা হয়েছে।

পিবিআই জানায়, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে আল-আমিন খেলাধুলা করার সময় হঠাৎ মেলায় যাবে বলে দৌঁড়ে বাসার সামনের দিকে যায়। তার বড় বোন মাহমুদা আক্তার রিপা পিছন থেকে দৌঁড়ে যায়। কিন্তু তাকে দেখতে না পেয়ে বাসায় ফিরে যায়। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে খুঁজতে থাকে। খোঁজাখাজি একপর্যায়ে বেলা পৌনে ২টার দিকে আলআমিনের বাবার মোবাইলে ফোন দিয়ে একজন মহিলা বলে, আলআমিনকে তারা নিয়ে যাচ্ছে। ছেলেকে ফেরত চাইলে দ্রুত ১ লাখ টাকা তৈরি রাখতে বলা হয়। ওই নম্বর থেকে আলআমিনের বাবার মোবাইলে আরো কয়েকবার মুক্তিপণের জন্য ফোন করে অপহরণকারীরা। আলআমিনের বাবা টাকা জোগাড় করতে না পারার কথা জানালে অপহরণকারী চক্রের সদস্য ছেলে কণ্ঠের একজন বলে, আলআমিনকে ফিওে পেতে হলে ১লাখ টাকা মুক্তিপন দিতে হবে। অন্যথায় আলআমিনকে মেরে ফেলার হুমকী দেয়। বিষয়টি বিশ্বাস করাতে আলআমিনকে মারধর করে তার কান্নার শব্দ শুনায়। এ ঘটনায় আলআমিনের বাবা যাত্রাবাড়ী থানায় জিডি করেন। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সকালে ও বিকেলে পৃথকভাবে অপহরণকারীদের দেয়া মোবাইল নম্বরে বিকাশের মাধ্যমে সাড়ে ৬ হাজার টাকা পাঠান। এর আগে ঘটনার দিন ছেলেকে অপহরণের ঘটনাটি পিবিআই ঢাকা মেট্টোর (উত্তর) বিশেষ পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের বরাবর লিখিত আবেদন করেন।

পিবিআই জানায়, আবেদনের প্রেক্ষিতে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদারের নির্দেশে শিশুকে উদ্ধারসহ ঘটনায় জড়িতদের ধরতে অভিযান চালায়। ওই টিমটি শিশুর অবস্থান শনাক্ত করলেও কৌশলে অপহরণকারীরা ঢাকা ও বরিশালসহ বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান পরিবর্তন করতে থাকে। একপর্যায়ে অবস্থান শনাক্ত করে সদরঘাটের ১ নম্বর পল্টুনের বরিশালের লঞ্চ টার্মিনাল এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে অপহৃত শিশু আল-আমিনকে উদ্ধার ও অপহরণকারীর চক্রের সদস্য রুহুল আমিনকে আটক করা হয়।

পিবিআইয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. বশির আহমেদ বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে রুহুল আমিন জানিয়েছে, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে আল আমিনকে অভিনব কায়দায় অপহরণ করে প্রথমে ঢাকার সদরঘাট ও পরে বরিশাল হয়ে আবারো ঢাকায় এসে সদরঘাট এলাকায় অবস্থান করছিল। এর আগেও একই প্রক্রিয়ায় আরো একাধিক শিশু অপহরণ করে মুক্তিপন আদায় করেছে বলে স্বীকার করেছে।

সর্বাধিক পঠিত