প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুমিল্লায় নৌবাহিনীর নবীন সদস্যের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা : কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার গোমতী নদী সংলগ্ন ভান্তি গ্রামে নবীন গলাকাটা অবস্থায় মেহেরাব হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়। বাড়ীতে ছুটিতে আসার সময় মায়ের সাথে একাধিকবার ফোনে কথা হয় নবীন নৌ সদস্য মেহেরাবের। মা বাড়ির সামনে দাড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন ছেলেকে এগিয়ে নেয়ার জন্য। বাড়ির কাছে এসেও কথা হয় মেহেরাবের। মা আমি ছুটি এসেছি…. তবে মায়ের কাছে পৌঁছার আগে দূর্বৃত্তের ধারালো ছোরার আঘাতে চির ছুটিতে চলে যায় মেহরাব। সন্তানহারা মায়ের আহাজারিতে ভান্তি এলাকার পরিবেশ ভারি হয়ে উঠে। কোন সান্তনাই সন্তানহারা মায়ের মনকে প্রবোধ দিতে পারছেনা। আমার মেহরাবকে আইনা দাও।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় , ২১ ফেব্রুয়ারী রাতে উপজেলার ভানতি গ্রামের মোঃ সফিকুল ইসলামের ছেলে নৌবাহিনীর সদস্য মোঃ মেহেরাব হোসেন ছুটিতে বাড়িতে আসার পথে আলেখারচর বিশ্বরোড থেকে তার মায়ের কাছে ফোন করে জানায় সে বাড়ীতে আসার জন্য বিশ্বরোড এলাকা থেকে সিএনজিতে উঠেছে। তার নিজ বাড়ী ভান্তি আসার পর গোমতী নদীর বেড়িবাঁধ থেকে বাড়ীর যাওয়ার রাস্তায় নামার সময়ও তার মাকে ফোন করে জানায়, ‘মা কাছেই এসে গেছি’।

কিন্ত বাড়ি ফিরতে দেরি হওয়ায় তার মা ও বোন তাকে খুঁজতে বের হয়। অপর দিকে স্থানীয় মেম্বার মো. কামাল হোসেন তার পুকুর থেকে মাছ ধরে ফেরার পথে গোমতী নদীর বেড়িবাঁধে দুটি ব্যাগ দেখতে পেয়ে তা স্থানীয় মসজিদে দেওয়ার জন্য রওনা হলে নিহত মেহেরাবের মায়ের সাথে সাক্ষাত হলে সে তার ছেলে ব্যাগ বলে চিৎকার করে। পরবর্তীতে তারা মেহেরাবকে খুঁজতে থাকে। এক পর্যায় গিয়ে গোমতী নদীর কিনারে গিয়ে তার মৃতদেহ খুঁজে পায়।

বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ আকুল চন্দ্র বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। তার গলা ও পেটে একাধিক ছুরির আঘাত রয়েছে। এখন তদন্ত চলছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরো জানান, কে বা কারা তাকে হত্যা করে গোমতী নদীর চরে ফেলে যায় তা এ মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত