প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চকবাজারের চুড়িহাট্টার আগুন নিয়ন্ত্রণে, ৭৮ জনের মৃত্যু

খালিদ আহমেদ ও সুজন কৈরী : পুরান ঢাকার চকবাজারের ৫টি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডে এ পর্যন্ত ৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা। জানিয়েছে এনটিভি ও মানবজমিন।

লাশ দ্রুত স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বললেন, এ ঘটনায় দগ্ধদের চিকিৎসা সরকারি খরচে করা হবে।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে গঠন করা ফায়ার সার্ভিসের ৩ সদস্যের এ তদন্ত কমিটিকে আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। ঘটনাস্থলে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) মেজর একেএম শাকিল নেওয়াজ এক ব্রিফিংয়ে এতথ্য জানান।

প্রায় পাঁচ ঘণ্টা চেষ্টার পর অবশেষে নিয়ন্ত্রণে এসেছে চকবাজারের চুড়িহাট্টায় লাগা আগুন।  ফায়ার সার্ভিসের ৩৭টি ইউনিট একযোগে কাজ করে বুধবার দিবাগত রাত সোয়া ৩টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন) একেএম শাকিল নেওয়াজ।

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ৭০ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দগ্ধ ১০ এবং  আহত হয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক। তবে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আগুনের ঘটনায় দগ্ধদের ম‌ধ্যে ১০ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের ম‌ধ্যে ১জনকে চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। বাকি ৯ জনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের ম‌ধ্যে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় একজনকে আইসিউতে রাখা হয়েছে।

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগে‌ডিয়ার জেনা‌রেল নাসির উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, আগুনের ঘটনায় আহতদের চিকিৎসায় পুরো প্রস্তুত রয়েছে হাসপাতাল। বার্ন ইউনিটে কয়েকজন ভর্তি আছেন। তাদের ম‌ধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে আইসিউতে রাখা হয়েছে। এছাড়া আগুনের ঘটনায় বিভিন্নভাবে আহত হয়ে কয়েকজন জেনারেল বিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

হতাহ‌তের বিষ‌য়ে তিনি ব‌লেন, ক‌য়েকজন আহত হ‌লেও এখন পর্যন্ত নিহ‌তের কোনো তথ্য আমা‌দের কা‌ছে নেই

আগুন লাগার খবর পেয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন সেখানে ছুটে যান । তিনি বলেন, এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা আহত হয়েছেন তাদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে যা কিছু করা প্রয়োজন তার সব করা হবে। আগুন যেহেতু নিয়ন্ত্রণে এসেছে সেহেতু এখন সার্চ কমিটির মাধ্যমে দেখা হবে ভবনগুলোর ভেতরে আর কোনও মৃতদেহ আছে কি না কিংবা কেউ কোথাও আটকা পড়েছেন কি না। তিনি  নগরবাসীকে আতঙ্কিত না হয়ে ধৈর্য্য ধরার অনুরোধ জানান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওয়াহিদ ম্যানসন ভবনটি এখন কেবল কংকালের মতো দাঁড়িয়ে আছে। যে কোনও সময় সেটি ধসে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এর আগে বুধবার রাত ১০টা ৩৮ মিনিটে প্রথমে ওয়াহিদ ম্যানসনে আগুন লাগে। কিছুক্ষণের মধ্যেই এর পাশের আরও একটি চারতলা ভবনে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। সব মিলিয়ে মোট চারটি ভবনে আগুন লাগে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আগুন লাগা চারটি ভবনের নিচে কমপক্ষে ত্রিশটির বেশি কেমিক্যাল গোডাউন রয়েছে। এসব গোডাউনের মধ্যে কয়েকটিতে গ্যাস সিলিন্ডার, বার্মিজ স্যান্ডেল, পারফিউম মজুদ করা ছিল। ভবনে লাগা আগুন এসব গোডাউনে ছড়িয়ে পড়লে আগুনের ভয়াবহতা বাড়তে শুরু করে। যে শব্দ পাওয়া যাচ্ছে তা পারফিউমের বোতল বিস্ফোরণের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি পিকআপ ভ্যানের সাথে প্রাইভেট কারের সংঘর্ষ ঘটেছিলো। গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হলে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে আগুন ওয়াহিদ ম্যানশনে ছড়িয়ে পড়ে। ভবনটির নিচ তলায় হোটেল ও দ্বিতীয় তলায় পারফিউমের গোডাউন ছিলো। যার কারণে আগুন আরো দ্রুত পাশের তিনটি ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভাতে নেমে পড়েন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে।

এদিকে আগুনের ঘটনায় বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছে। তাদের খুঁজতে হাসপাতালে ভীড় করছেন স্বজনরা। করছেন নিখোঁজদের ছবি হাতে আহাজারিও।

চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তাঁরা নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার। ঘটনা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে ২০১০ সালে পুরান ঢাকার নিমতলিতে প্লাষ্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১২৪ জন মারা যায়। এরপর থেকেই ওই এলাকা থেকে কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদের জোর দাবি উঠলেও আজও তা কার্যকর হয়নি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত