প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোটা আন্দোলনকারীদের জোটে চায় সব সংগঠন

ডেস্ক রিপোর্ট : ছাত্ররাজনীতির কেন্দ্র বলে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের দীর্ঘ ৯ বছর ধরে চলে আসা চিত্র অনেকটাই বদলে গেছে। স্থানে স্থানে জটলা। বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা আড্ডা দিচ্ছেন। অনেকটা শঙ্কা আর ভীতিহীন পরিবেশ।

মূলত আসন্ন ডাকসু নির্বাচন কেন্দ্র করেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের এমন চিত্র। নির্বাচন সামনে রেখে সবাই নিজ নিজ সংগঠনের প্যানেল নির্ধারণের কাজ করলেও পিছিয়ে রয়েছে ছাত্রদল। তাদের নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়। তবে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগের প্রার্থী তালিকার খসড়া সম্পন্ন হয়েছে। দুয়েক দিনের মধ্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরামর্শ নিয়ে ডাকসু ও হল সংসদের একযোগে প্যানেল ঘোষণা করবে ছাত্রলীগ।

অন্যদিকে কোটা সংস্কারের দাবিতে গড়ে ওঠা প্ল্যাটফর্মের নেতাকর্মীরাও ভোটের মাঠে সক্রিয়। বিভিন্ন সংগঠন নানাভাবে প্রলুব্ধ করছে তাদের নিজেদের ভোটের জোটে টানার জন্য। ডাকসু নির্বাচনের আর বাকি মাত্র ১৭ দিন। ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম গ্রহণ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি জমা দেওয়ার শেষ দিন। ক্যাম্পাসে দীর্ঘদিন ধরে একক আধিপত্য ছাত্রলীগের। ফলে তাদের মধ্যে ডাকসুতে বিজয়ের প্রত্যাশাও বেশি।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখার শীর্ষ চার নেতা ছাড়াও অন্তত ৩০-৪০ জন ডাকসুর ভিপি, জিএস ও এজিএস পদে নির্বাচন করতে আগ্রহী। হল সংসদগুলোতে হলভেদে ১০-২৫ জন পর্যন্ত ভিপি ও জিএস পদে প্রার্থী রয়েছে। ফলে প্রার্থী নির্ধারণে হিমশিম অবস্থা ছাত্রলীগের। আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, ডাকসুর প্যানেল নির্ধারণে আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা ছাত্রলীগের বর্তমান শীর্ষ নেতাদের ওপরই আস্থা রাখছেন। এ ক্ষেত্রে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে ভিপি, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানীকে জিএস এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিৎ চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনকে এজিএস প্রার্থিতার মাধ্যমে প্যানেল ঘোষণা করতে পারে ছাত্রলীগ।

আবার এমনটিও হতে পারেÑ কেন্দ্রীয় কমিটির শীর্ষ দুজনের মধ্য থেকে একজনকে ভিপি, ঢাবির শীর্ষ দুজনের একজনকে জিএস এবং কোনো ছাত্রী নেত্রীকে এজিএস হিসেবেও প্যানেল দিতে পারে ছাত্রলীগ। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

জানতে চাইলে ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের এক জ্যেষ্ঠ নেতা আমাদের সময়কে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে তার নিজস্ব উইং দিয়ে ডাকসুর সম্ভাব্য প্রার্থীদের বিষয়ে খোঁজখবর নিয়েছেন। আশা করছি, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ব্যস্ততা শেষে ২২ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ বিষয়ে আমরা আলোচনায় বসব।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি শোভন বলেন, ডাকসু ও হল সংসদে ছাত্রলীগের প্রার্থী কারা হবেন, সে বিষয়ে আমাদের প্রস্তুতি প্রায় শেষপর্যায়ে। ইতোমধ্যে খসড়া তালিকা হয়ে গেছে। আশা করছি, আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল ঘোষণা করব আমরা।

আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ সূত্রে আরও জানা গেছে, হল সংসদে প্রার্থিতার ক্ষেত্রে বর্তমান হল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের মধ্যে যাদের ছাত্রত্ব রয়েছে, তাদেরই প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে আওয়ামী লীগের উচ্চপর্যায় থেকে। যদিও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ও ঢাবির শীর্ষ ৪ নেতা এর বিরোধিতায় ছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত হলের বিরোধ এড়াতে ওই পরামর্শই মেনে নেওয়া হবে বলে জানা গেছে। তবে কয়েকটি হলে ছাত্রলীগের হল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বাইরে থেকেও ভিপি-জিএস প্রার্থী দেবে ছাত্রলীগ। অন্যদিকে ছাত্রদলের পক্ষ থেকে গতকাল বুধবার পর্যন্ত কেউ-ই মনোনয়ন ফরম তোলেননি। সংগঠনটির পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে বয়সসীমা তুলে দেওয়া, ভোটকেন্দ্র হলের বাইরে স্থাপনসহ কয়েকটি দাবি তোলা হয়েছে। ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দাবিগুলো না মানলে তারা বিকল্প চিন্তা করবেন। সে ক্ষেত্রে নির্বাচন বর্জন ঘোষণার পাশাপাশি আন্দোলনের ঘোষণাও দিতে পারে ছাত্রদল। এ ইস্যুতে অন্যান্য ছাত্রসংগঠনের সঙ্গে কয়েকটি বৈঠকও করেছেন ছাত্রদলের শীর্ষ নেতারা।

সূত্র জানায়, ছাত্রদল ইতোমধ্যে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ শিক্ষার্থী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। জোটবদ্ধ নির্বাচনের বিষয়ে ছাত্রদলের পক্ষ থেকে আগ্রহও প্রকাশ করা হয়। তবে এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান বলেন, মূলত ডাকসুকে ছাত্রলীগের একটি শাখা হিসেবে তৈরির অপচেষ্টা এ নির্বাচন। বয়সসীমা বেঁধে দিয়ে কেবল ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের প্রার্থী হওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

তিনি বলেন, আমাদের দাবিগুলো না মানা হলে আন্দোলনে যাব। জানা গেছে, গত কয়েক দিনে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাদের সঙ্গে সরকারের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদের যোগাযোগ হয়েছে। বৈঠক হয়েছে ছাত্রলীগের নেতাদের সঙ্গেও। এ ক্ষেত্রে কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নূরুল হক নূরকে এজিএস হিসেবে জোট থেকে প্রার্থী করার কথা বলা হয়েছে। এ বৈঠকও এখন পর্যন্ত ফলপ্রসূ হয়নি।

তবে বৈঠকের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগের ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন। তিনি বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন ছাত্রসংগঠন, টিএসসিভিত্তিক বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, খেলাধুলা ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইভেন্টে নৈপুণ্য প্রদর্শনকারীদের সঙ্গে কথা বলেছি। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কোনো বৈঠক হয়নি। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্র ইউনিয়ন ও প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতারাও বৈঠক করেছেন বলে জানা গেছে। বৈঠকে অংশ নেওয়া কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতারা শুরুতে ইতিবাচক থাকলেও পরে জোট গঠনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন।

এ বিষয়ে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি নেই। সময়ই সব বলে দেবে।

সাধারণ শিক্ষার্থী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নূরুল হক নূর বলেন, আমরা এককভাবেই নির্বাচন করতে চাই। বিভিন্ন ছাত্রসংগঠন ও জোটের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে। তবে আমাদের নেতাকর্মীদের দাবিÑ জোটবদ্ধ নয়, এককভাবেই নির্বাচন করতে হবে। এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবেশ পরিষদের মাধ্যমে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ থাকলেও গতকাল মধুর ক্যান্টিনে রাজনৈতিক কর্মকা- পরিচালনা করে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন। সংগঠনের নেতারা মধুর ক্যান্টিনে অবস্থানের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সঙ্গেও কথা বলেন। এ সময় ছাত্রদল, ছাত্রলীগ, বামজোটসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা সেখানে ছিলেন।

তবে ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন বলেন, মধুর ক্যান্টিনে ওই সময় আমরা ছিলাম না। ধর্মভিত্তিক সংগঠনের যে কোনো অপতৎপরতা আমরা প্রতিহত করব। এ বিষয়ে ছাত্রসংগ্রাম পরিষদভুক্ত বাংলাদেশ ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি ইউনুস সিকদার বলেন, কোনোভাবেই এটি মেনে নেওয়া হবে না। আমি প্রতিবাদ করেছি। ধর্মভিত্তিক দলগুলো ঢাবি ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ। তাদের প্রতিহত করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত