প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকার বাংলা একাডেমিতে অমর একুশে বইমেলায় একটি স্টলের নাম পেন্সিল, এটি ফেসবুক ভিত্তিক একটা গ্রুপ

আব্দুস সালাম : এবারের বই মেলায় লিটল ম্যাগাজিনের জন্য ১৩০ এর বেশি স্টল বরাদ্দ করা হয়েছে। কিন্তু বই মেলা যখন জমজমাট অবস্থা তখন লিটল ম্যাগাজিন চত্বরের অনেক স্টলকে দেখা গেছে খালি পরে থাকতে। এর কারণ ফেসবুক ভিত্তিক একটা গ্রুপ যার নাম পেন্সিল। এখানে কেউ লেখেন, কেউ ছবি আঁকেন। ফেসবুকে এই পেন্সিল গ্রুপে যারা লেখেন, তাদের বই নিয়ে এবারে স্টল দিয়েছে গ্রুপটি। পেন্সিলের সদস্য মুরাদ মুস্তাফিজ বলেন, নতুনদের প্রমোট করার জন্য পেন্সিল এবার চিন্তা করেছে যে ম্যাগাজিন মানুষের কাছে পৌঁছে দেবে ফেসবুকের মাধ্যমে, যেহেতু আমাদের ১ লক্ষ ২৫ হাজার সদস্য আছে। বিবিসি

মি. মুস্তাফিজ আরো বলেন, ফেসবুকে লিখলেও কাগজে লেখার বই এর আলাদা মাত্রা আছে যেটা অস্বীকার করার উপায় নেই। সেখান থেকেই লেখা গুলোর বই আকার দেয়া।

ভিন্নচোখ নামে একটা প্রকাশনীর প্রকাশক এস এম নকিব বলেন, ফেসবুক কখনই লিটল ম্যাগাজিনের স্থান নিতে পারবে না। যারা বই প্রকাশ করে বা লেখে তাদের আসলে ফেসবুকে ঐধরনের কিছু প্রকাশ করা সম্ভব না। যেভাবে একটা বই মনের ভাব প্রকাশ করতে পারবে সেভাবে ফেসবুক পারবেন না। আসলে যারা বই পড়ে তারা বই অবশ্যই কিনবে। যারা ম্যাগাজিন পড়ে তারা ম্যাগাজিন অবশ্যই কিনবে।

সময় পূর্বাপর’ নামের পাক্ষিক ম্যাগাজিনের সুরাইয়া জাহান বলছিলেন, অনেকে ফেসবুকটাকে প্রাধান্য দিচ্ছে। আগের মত লিটল ম্যাগের সেই জোয়ারটা নেই। এখানে যেমন জমজমাট হওয়ার কথা ছিল তেমনটা নেই। তারপরেও লিটল ম্যাগাজিন বের হচ্ছে। স্টল গুলো সবাই নিয়ে বসে থাকে কিন্তু বিক্রি খুবই কম। ফেসবুকে লেখালেখি নতুন নয়, তবে লিটল ম্যাগাজিনকে বাদ দিয়ে, ফেসবুককেই নতুন লেখকরা যে তাদের লেখার প্যাটফরম হিসেবে মনে করছেন এমনটা ভাবছেন না লেখক এবং প্রকাশকরা। কারণ দিন শেষে সবাই কাগজের মলাটের একটা বই নিজের লেখা দেখতে পছন্দ করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত