প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অসুস্থ খালেদা জিয়া, তোপের মুখে ফখরুল, মওদুদ

শিমুল মাহমদ : একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে’ বিএনপির এক আলোচনা দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। বুধবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এই আলোচনা সভায় এ ঘটনা ঘটে।

মির্জা ফখরুল বক্তব্য দেওয়ার কিছুটা শুরুতেই নেতাকর্মীরা বলেন, কর্মসূচি দেন নয় তো সংগঠন ভেঙ্গে দেন। আমরা কর্মসূচি চাই।

এ সময় ফখরুল বলেন, কর্মসূচি হবে ধৈর্য্য ধরেন। কর্মসূচি যে দিবো আপনাদের পালন করতে হবে তো। ধৈর্য ধরেন, সব কিছুই হবে। আপনাদের ধৈয্য ধরতে হবে। এখানে বসে চিৎকার করলে হবে না।

আপনাদের যে ক্ষোভ ব্যাথা সেটা আমরা বুঝি। কিন্তু একটা কথা আপনাদের সবসময় মনে রাখতে হবে। ফ্যাসিবাদের সঙ্গে যখন গণতন্ত্র লড়াই করে তখন এতো সহজে সফলতা অর্জন করা যায় না। আপনারা কেনো ভাবছেন আপনারা ব্যর্থ হয়েছেন। আপনারা কখনই ব্যর্থ হননি। আজকে আপনারা বিজয়ী হয়েছেন। আমি আপনাদের এইটুকু বলতে চাই, কখনইন মনেত জোর হারিয়ে ফেলবেন না।

গণতন্ত্র হত্যায় স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে বিশ্বজনমত তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমাদের ভুলে গেলে চলবে না আমরা দীর্ঘদিন সংগ্রাম করে এসেছি। আমাদেরকে এই লড়াই আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এই লড়ায়ে আমাদের আরো ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এই ফ্যাসিবাদ শক্তিকে মোকাবেলা করার জন্য অবশ্যই আমাদের সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে এবং সংগ্রাম সংগঠন গড়ে তুলতে হবে।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বক্তব্যের প্রায় ৩ মিনিট পার হলে দর্শকসারি থেকে নেতাকর্মীরা স্লোগান ধরেন মুক্তি, মুক্তি, মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, জেলের তালা ভাঙতে হবে, খালেদা জিয়াকে আনতে হবে। এসময় মওদুদ আহমদ নীরব দর্শকের ভূমিকায় কর্মীদের স্লোগান শুনেন। স্লোগান শেষ হলে মওদুদ বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ কোর্টে আনার কথা ছিলো। কিন্তু অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি। এই কথাই বলতে চাচ্ছিলাম। আর স্লোগানকে বাস্তবায়ন করতে চান না? আবার স্লোগান। তখন মওদুদ আহমদ বলেন, খালেদা জিয়ার কথা শুনতে চান না। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। আইনী প্রক্রিয়ায় তার মুক্তি সম্ভব না। সুপরিকল্পিত আন্দোলন দিতে হবে। যাতে এবার আমরা পরাজিত না হই। আর বেগম জিয়ার মুক্তি হবে আমাদের এক নাম্বার এজেন্ডা।

মওদুদকে উদ্দেশ্য করে কর্মীরা বলেন, হল খালি কেনো? মুক্তি, মুক্তি, মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই। খালেদা জিয়ার ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই।

মির্জিা ফখরুল বলেন, আজকে আমাদের ক্ষোভের সঙ্গে বলতে হয়। আমরা এমন একটা অবস্থার মধ্যে বিরাজ করছি যা জাতির জন্য কলংঙ্খময় অধ্যায় সৃষ্টি হয়েছে। এতোবড় সংকট জাতির সামনে কখনো এসেছে বলে আমার জানা নাই।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, গনতন্ত্রের জন্য যিনি সারাটা জীবন সংগ্রাম করেছেন, তিনি আজ কারাগারে। আজকে আমি জেলগেট পর্যন্ত গিয়ে ফিরে এসেছি। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। অসুস্থতার কারণে আদালতে আসতে পারেননি। বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে মানবাধিকার লঙ্গনের কারণে তাদের বিচার হবে।

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, মহিলা দলের যুগ্ম সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত