প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গ্রুফ পর্বে না হয় বয়কট করলো, নক-আউটে কি করবে ভারত?

স্পোর্টস ডেস্ক: পুলওয়ামায় পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠনের হামলার আঁচ অচিরেই গিয়ে পড়েছে ক্রিকেটের বাইশ গজে। ১৪ ফেব্রুয়ারি উপত্যকায় নৃশংস জঙ্গিহামলার ঘটনার পর বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের ম্যাচ খেলা উচিৎ কিনা, সেই নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত ক্রিকেটমহল।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে ভারতের ম্যাচ বয়কট করা উচিৎ। এমন দাবি জানিয়ে ইতিমধ্যেই সরব হয়েছেন হরভজন সিং।
এবার বিশ্বকাপে রাউন্ড-রবিন পদ্ধতিতে টুর্নামেন্টের দশ দল একে অন্যের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলবে৷ সেক্ষেত্রে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ বয়কট করলেও বিশ্বকাপে জেতার পথে কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয় বলেই মনে করছেন হরভজন৷ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বহু ক্রিকেটযুদ্ধের নায়ক আরো বলেন, ‘বিশ্বকাপে ভারতই সবার ফেভারিট৷ সেক্ষেত্রে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এক ম্যাচ বয়কট করে পয়েন্ট হারালেও বাকি ম্যাচগুলিতে দারুণ খেলে বিশ্বকাপ জেতার ক্ষমতা রাখে ভারত৷’

৩০ জুন ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাটিতে বসছে দ্বাদশ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর। কিন্তু টুর্নামেন্টের ইউএসপি ১৬ জুন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারত-পাক মহারণ। এই ম্যাচের দিকেই তাকিয়ে থাকে ক্রিকেটবিশ্ব।

পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিসিসিআইয়ের এক সিনিয়র কর্তা তাই হরভজনের যুক্তিকে খন্ড করে বলেন,‘হরভজন বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের ম্যাচ না খেলা নিয়ে মন্তব্য করেছে। কিন্তু নক-আউট পর্যায়ে ভারত ও পাকিস্তান মুখোমুখি হলে ভারতের ম্যাচ ছেড়ে দেওয়া উচিত কিনা, তা নিয়ে পরিষ্কার করেননি তিনি। সুতরাং এখনই আমাদের ভারত-পাক ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণী করা ঠিক হবে না।’

সিনিয়ার ওই বোর্ড কর্তা আরো বলেন, ‘রেকর্ড বলছে, কার্গিল যুদ্ধ চলার সময়ও ১৯৯৯ বিশ্বকাপে ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলেছে। তবে এখন আমরা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। যারা এই ঘৃন্য চক্রান্ত করেছে সরকার নিশ্চয় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।’ অর্থাৎ পরিস্থিতি যাই হোক সরকারের সিদ্ধান্তকেই ম্যাচ খেলার বিষয়ে সর্বাগ্রে প্রাধান্য দেওয়া হবে সেটা হাবে ভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি। তবে ৪০ জন জওয়ানের বীরগতি হওয়ার ঘটনার পর দু’দেশের রাজনৈতিক চাপান-উতোরের মাঝে বিসিসিআইয়ের এদিনের বৈঠক ভীষণই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত