প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আবারও সেন্টমার্টিনের মালিকানা দাবির পর তলবে এসে ভুল স্বীকার করলো মিয়ানমারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত

তরিকুল ইসলাম : আবারও সেন্টমার্টিনকে প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার নিজেদের বলে দাবি করার চেষ্টা করছে।দেশটির উদ্ভূত এমন আচরণ ঢাকার নজরে এলে বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মিয়ানমারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত অং মিন্টকে তলব করা হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া বিষয়ক মহাপরিচালক দেলোয়ার হোসেন মিয়ানমারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতকে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটায় বিস্ময় প্রকাশ করে তীব্র প্রতিবাদ জানান। পরবর্তীতে যেন একই ঘটনা আর না ঘটে এবং এই ঘটনায় জবাব চেয়ে একটি কূটনৈতিক নোট হস্তান্তর করা হয়।

এসময় ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়ে দ্রুত গাড়িতে উঠে পরেন। ছবি তুলতে গেলে ক্ষোভে ফেটে পরে তিনি বলেন, আমিতো রাষ্ট্রদূত না, আমার ছবি তুলছেন কেনো! পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া বিষয়ক মহাপরিচালক দেলোয়ার হোসেন বলেন, তারা তাদের ভুল স্বীকার করেছে। আমরা তাদেরকে আমাদের অবস্থান স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছি।

গত বছরের অক্টোবরে প্রথম দফায় দেশটির সরকারি ওয়েবসাইটে দাবি করার পর সে সময় বিষয়টি জানতে পেরে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে একটি কূটনৈতিক চিঠি দিয়েছিল বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (সমুদ্র বিষয়ক) অবসরপ্রাপ্ত নৌ কর্মকর্তা মো. খুরশেদ আলমের দফতরে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে সে সময় তলব করেন। উ লুইন ও’কে ডেকে এনে বলা হয়, মিয়ানমার সরকার গায়ে পড়ে ঝগড়া করতে চাচ্ছে। মিয়ানমার ইচ্ছাকৃতভাবে বাংলাদেশের সেন্ট মার্টিনের কিছু অংশ বৈশ্বিক অঙ্গণে নিজেদের বলে প্রচার করছে, যা খুবই আপত্তিজনক। মিয়ানমার যদি এমন আপত্তিজনক কাজ চালিয়ে যেতে থাকে তবে বাংলাদেশ উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে।

সে সময় রাষ্ট্রদূতের হাতে একটি কূটনৈতিক চিঠি ধরিয়ে দেওয়া হয়। যাতে সেন্টমার্টিন যে বাংলাদেশের অংশ তার পূঙ্খানুপুঙ্খ প্রমাণ রয়েছে। পাশাপাশি ওই চিঠিতে মিয়ানমারের এমন আপত্তিকর কাজের জবাবও চাওয়া হয়। সেই ঘটনার পর এতদিন মিয়ানমার মানচিত্র থেকে সেন্টমার্টিনের ম্যাপ হাইড করে রাখলেও এবার আবারও তা প্রকাশ করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত