প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজধানীতে যানবাহন নিয়ন্ত্রণে সিগন্যালের পরিবর্তে অভিনব পদ্ধাতি ট্রাফিকের

জাবের হোসেন : রাজধানীতে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় রশি, লোহার পাইপ, হাতের ইশারা এমন অভিনব পদ্ধতি ব্যবহার করেও শৃঙ্খলা আনতে পারছে না পুলিশ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ট্রাফিক সিগনাল না মানার প্রবণতা কিংবা অভ্যাস না থাকায় সড়কে শৃঙ্খলা রাখতেই অদ্ভুত এ ব্যবস্থা। পুরো নগরীকেই স্বয়ংক্রীয় ট্রাফিক সিগনালের আওতায় আনার কথা বলছেন তারা। ডিবিসি নিউজ

রাজধানীর অন্যতম ব্যস্ততম এলাকা সোনারগাঁও মোড়, বাংলামোটর, শাহবাগসহ প্রায় নগরীর গুরত্বপূর্ণ বড় এই মোড়গুলোর ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণে রশি, লোহার পাইপসহ নানান পদ্ধতিই চোখে পড়ে। লাল-সবুজ বাতি জ্বললেও সেদিকে নজর নেই চালকদের। সিগন্যাল বন্ধ থাকলেও ট্রাফিক পুলিশের হাতের ইশারার ফাকফোকর দিয়েই ছটুছে চালক ও পথচারী। থামার সিগন্যাল দেবার পরও অনেক গাড়ির চালক পথচারী পারাপারের জেব্রা ক্রসিং আটকে দাঁড়াচ্ছেন।

এইসব সামলাতে নিয়মের বাইরে এসে ভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছেন পুলিশ। ডিএমপি অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মীর রেজাউল আলম বলেন, জেব্রা ক্রসিং এর আগে একটা স্টপ লাইন আছে। নিয়ম অনুযায়ী স্টপ লাইন বরাবর থামার কথা। কিন্তু চালকরা হয় জেব্রা ক্রসিং এর মাঝখান বরাবর দাঁড়ান, না হয় জেব্রা ক্রসিং পার হয়ে এসে দাঁড়ান।

তিনি আরো বলেন, নানা ধরনের আচরণের সম্মুখীন হতে হয় আমাদের। এগুলো করতে গিয়ে আমাদের সদস্যরা আহত হচ্ছে, রাস্তার মাঝখানে দড়ি দিয়ে রাস্তা বন্ধ করতে হচ্ছে। এগুলো আসলে পরিস্থিতি সামলানোর একটা ব্যবস্থা যেটা ট্রাফিক আইনের কোন নিয়মের মধ্যে পরে না।

ট্রাফিক পুলিশ বশির বলেন, সিগন্যাল যেই লেভেলে আমরা বন্ধ করি, চালকরা আস্তে আস্তে সামনে চলে আসে। সেক্ষেত্রে মানুষ যে পারাপার হয় সেই জায়গাটুকু আর থাকে না। তাই আমরা রশি দিয়ে বন্ধ করি যাতে মানুষ পার হওয়ার পর্যাপ্ত জায়গা থাকে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত