প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জলসা না হওয়ায় আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি, বললেন কাদিয়ানী নেতা

মারুফুল আলম : কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা আহমেদ তাফসীর চৌধুরী বলেছেন, অনুষ্ঠানের জন্য ১৪/১৫ দিন যাবত দিন রাত খেটেছি। আট দশ হাজার লোকের জন্য যেসব প্রস্তুতি দরকার, মোটামুটি সবই করেছি। জলসায় যোগ দিতে অনেকে ট্রেনের টিকিট করে ফেলেছেন। বৃহস্পতিবার বিবিসি বাংলাকে তিনি বলেন, কিন্তু জলসা স্থগিত হওয়ায় সব মিলিয়ে আর্থিক ও মানসিকভাবে দারণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

সালানা জলসা যেহেতু স্থগিত হয়ে গেছে, আমাদের কিছুই করার নেই। হৈ চৈ বা দাবি-দাওয়ার জন্য আন্দোলন কিছুই করবো না। আমরা প্রশাসনকে বলেছিলাম, আপনারা যদি বন্ধ করে দেন, আমরা অবশ্যই মেনে নেবো। তারা সেটাই করলেন।

যারা আক্রমনের শিকার হয়েছিলেন, তাদের অবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, তাদের মনোবল খুবই শক্ত আছে। আমি হাসপাতালে গিয়েছিলাম। তারা বলেছেন, মরে গেলে যাবো তবুও জলসা যেনো হয়। তারা গত এক বছর ধরেই প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখার করার বিষয়ে তিনি বলেন, জেলা প্রশাসক যেহেতু আমাদের কথা রাখলেন না, নতি স্বীকার করলেন, আমরা উচ্চপর্যায়ে যোগাযোগ করবো, কথা বলবো। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলবো।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাতে পঞ্চগড়ে কাদিয়ানীদের বার্ষিক সালানা জলসাকে কেন্দ্র করে মুসল্লি, কাদিয়ানী স¤প্রদায় ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থল রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এতে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের বৈঠকে কাদিয়ানিদের জলসা স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়।

তাফসীর চৌধুরী বলেন, বিরোধীরা জলসার ব্যাপারে আগে মৌন সম্মতি জানালেও পরে আবার প্রত্যাহারের দাবি জানান। আক্রমনও করেছেন। আমরা প্রশাসনকে বলেছি, আপনারা যদি এটা বন্ধ করতে নির্দেশ দেন, তাহলে ভিন্ন কথা। তবে আমরা নিজেরা এ অনুষ্ঠান প্রত্যাহার করবো না। কারণ, এটা আমাদের অধিকার।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত