প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘৃণা নয়, আসুন ভালোবাসা ছড়াই

প্রভাষ আমিন : ভালোবাসার আসলে কোনো বয়স নেই, ধর্ম নেই, দেশ নেই, জাতি নেই, বর্ণ নেই, ক্ষণ নেই, দিন নেই। তবুও আমরা একটি দিনকে ভালোবাসা দিবস হিসেবে পালন করি। ভালোবাসা দিবস পাুলনে আমার আপত্তি নেই। কিন্তু তার মানে এই নয়, বছরের বাকি দিনগুলোতে ভালোবাসতে হবে না। আমাদের আসলে প্রতিদিনই ভালোবাসতে হবে। না হয়, ভালোবাসা দিবসে একটু বেশিই ভালোবাসুন। কিন্তু অন্য দিনগুলোতে ভালোবাসতেও ভুল করবেন না, কম করবেন না। কিন্তু সমস্যা হলো আমরা ভালোবাসার চেয়ে ঘৃণা আর বিদ্বেষ ছড়াতেই বেশি ওস্তাদ। কেউ কারো কথা শুনতে চাই না, মানতে চাই না। মতে না মিললেই ঝাঁপিয়ে পড়ি- কেউ চাপাতি নিয়ে, কেউ গালি নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিদিন চোখ রাখলেই বুঝি, আমরা কতোটা অসহিষ্ণু, পরমতের ব্যাপারে আমরা সত্যি সত্যি জিরো টলারেন্স। এই ঘৃণা, এই বিদ্বেষ হয়তো আমাদের ভেতরেই ছিলো, হয়তো একটু চাপা পড়েছিলো। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সে আড়ালটা তুলে দিয়েছে। বাসায় বা আড্ডায় আমরা যে সব শব্দ ভুলেও উচ্চারণ করি না, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অবলীলায় সেটা লিখে ফেলি।

বলছিলাম পরমতসহিষ্ণুতার কথা। এই লেখা যখন লিখছি, তখন শুনলাম হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শফী কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার আবদার করেছেন। চট্টগ্রামের হাটহাজারিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি তুলেছেন। ভালোবাসা দিবসে পত্রিকায় শিরোনাম হবে, কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবি। আপনি আপনার বিশ্বাস নিয়ে থাকুন। কাদিয়ানীদের তাদের ধর্ম পালন করতে দিন। তাদের অমুসলিম। ঘোষণার এখতিয়ার আপনাকে কে দিয়েছে? ইসলাম শান্তির ধর্ম। কিন্তু ইসলাম ধর্মে আছে অনেক মত-পথ। শিয়ারা সুন্নীদের সইতে পারে না, সুন্নীরা কাদিয়ানীদের মুসলমান মনে করে না। এই ঘৃণা, এই হানাহানি আমাদের আরো দুর্বল করছে, আরো বিভক্ত করছে। আল্লাহ আমাদের সবাইকে নিজ নিজ ধর্ম পালনের তৌফিক দিক, অপরের বিশ্বাসকে সম্মান করার মতো জ্ঞান দিক। ভালোবাসা দিবসে আমরা যেন ঘৃণা-বিদ্বেষ না ছড়াই। যেন শুধু ভালোবাসাই ছড়িয়ে দিতে পারি।

লেখক : হেড অব নিউজ, এটিএন নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত