প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্যাগ বলছে, ইউপিএ আমলের চেয়ে মোদীর রাফায়েল চুক্তি সস্তা, ভারতের বিরোধী দলগুলোর প্রত্যাখ্যান

রাশিদ রিয়াজ : ইউপিএ আমলে ১২৫টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান কিনতে যে টাকা বরাদ্দ করা হয়, এনডিএ আমলে তা ২.৮% সস্তা হয়েছে। রাফায়েল চুক্তিতে ১৩টি পরিবর্তন করে ভারত। তার ফলেই রাফায়েল বিমানের দাম কমে বলে রাজ্যসভায় পেশ করা ক্যাগ রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে। এর আগে কংগ্রেস প্রধান রাহুল গান্ধীর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে রাফায়েল ক্রয়ে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার জন্যে টানা আক্রমণের মধ্যেই নয়া রিপোর্ট জমা পড়ল রাজ্যসভায়। তবে এই রিপোর্টকে পক্ষপাত দুষ্ট বলে খারিজ করে দিয়েছে বিরোধীরা।

ক্যাগ অর্থাৎ কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের রিপোর্টে রাফায়েল যুদ্ধ বিমানের দাম নির্ধারণ নিয়ে বেশ কয়েকটি বিতর্কিত ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। এই সব বিস্তরিত তথ্য প্রকাশ করা যাবে না বলে জানিয়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। রাহুল দাবি করেছিলেন, ভারতের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকরের আগে রাফায়েল ডিলের কথা জানতেন দেশটির শীর্ষ ব্যবসায়ী অনিল আম্বানি। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অনিল আম্বানির ‘মিডলম্যান’ বলে মন্তব্য করেন রাহুল। রাহুল গত মঙ্গলবার একটি ইমেইলের তথ্য ফাঁস করে জানান, মোদী ৩৬টি রাফায়েলের চুক্তি ঘোষণা করার ঠিক আগেই দেশের কয়েকজন শিল্পপতি ফরাসি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। এমনকি তার অভিযোগ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী বা বিদেশ সচিবও জানতেন না। অথচ ওই চুক্তির কথা জানতেন অনিল আম্বানি। ক্যাগ রিপোর্টকে ‘চৌকিদার অডিটর জেনারেল’ রিপোর্ট বলে কটাক্ষ করেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। সাংবাদিক সম্মেলনে রাহুল প্রশ্ন তোলেন কীভাবে রাফায়েল চুক্তির ১০ দিন আগে অনিল আম্বানি ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। রাহুল দাবি করেন, ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত নিয়ে সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকর, বিদেশ সচিব এমন কি হ্যালও জানেন না। কাগজ দেখিয়ে রাহুল দাবি করেন, অনিল আম্বানি চুক্তির আগেই জানতেন বরাত তিনি পাচ্ছেন। রাহুলের অভিযোগ, তথ্য ফাঁস করে জাতীয় সুরক্ষার সঙ্গে সমঝোতা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

ইতিমধ্যেই সিএজি রাফায়েল সংক্রান্ত রিপোর্ট পেশ করেছে। রাহুল গান্ধী ক্যাগ রিপোর্টকে কটাক্ষ করে বলেছেন, চৌকিদার অডিটর জেনারেল রিপোর্ট। রাজ্যসভায় পেশ করা এই রিপোর্ট ত্রুটিপূর্ণ বলে দাবি করেছে কংগ্রেস-সহ সব বিরোধী দল। তাদের দাবি এই রিপোর্টে চুক্তি সংক্রান্ত বাস্তব তথ্য কোনও ভাবেই উঠে আসেনি। আরও বলা হচ্ছে যিনি এই রিপোর্ট তৈরি করেছেন, সেই অডিটর রাজীব মেহর্ষি নিজেই চুক্তির সময় অর্থ সচিব ছিলেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত