প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘হলে গিয়ে ভোট দিতে ভয় পেলে’ নির্বাচিত হয়ে হলে যাবে কীভাবে, বললেন শফিউল আলম ভূঁইয়া

মঈন মোশাররফ : ডাকসু নির্বাচন আচরণবিধি কমিটির সদস্য ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া, ডাকসুর ঐতিহ্য হলো হলে ভোট কেন্দ্র । কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ছাড়াও একই সঙ্গে হল সংসদের নির্বাচনও হয়। ডাকসুর সে ঐতিহ্য আমরা কেন ভাঙবো ? তাই হলের বাইরে ভোট কেন্দ্র নেয়ার যৌক্তিক কোনো কারণ দেখি না ।
বুধবার ডয়চে ভেলেকে তিনি আরো, সহাবস্থান কথাটি রাজনৈতিক চিন্তাপ্রসূত । ডাকসু নির্বাচন রাজনৈতিকভাবে হয়। এখানে বিভিন্ন দলের অনুসারী ছাত্র সংগঠন আছে সত্য, কিন্তু নির্বাচনটি হয় স্বতন্ত্র।

তিন বলেন, যারা নির্বাচন করেন, তারা তাদের সুবিধার জন্য প্যানেল করে নেন। যারা সহাবস্থানের কথা বলছে, তারা হলের বৈধ ছাত্র-ছাত্রী কিনা, যদি হন এবং হলে থাকতে না পারেন, তাহলে প্রভোস্টদেও লিখিতভাবে জানালেই তারা ব্যবস্থা নেবেন। কিন্তু এ ধরনের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ কোথায়?

তিনি জানান, নির্বাচনী প্রচারে হলে বা ক্যাম্পাসে বাধা পেলে রিটার্নিং অফিসারদের জানালে তারা ব্যবস্থা নেবেন । আচরণবিধি আছে । আচরণবিধি কমিটি আছে। নির্বাচনে কী হবে, ভোট রিগিং হবে এটা তো অনুমান ভিত্তিক কথা। এ ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করা উচিত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত