প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হরিপুরে বিজিবি-গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ৪; আহত ১২

আনোয়ার হোসেন জীবন ও রশিদ হরিপুর রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও): ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে চোরাচালান বিরোধী অভিযানে ভারতীয় চোরাই গরু উদ্ধারের সময় বিজিবির সাথে গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পথচারী, শিশুসহ ৩ জন নিহত ও ১৪ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

৩নং বকুয়া ইউনিয়নের রুহিয়া গ্রামের নজরুল ইসলাম ছেলে নবাব (৩০), বহরমপুর গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে জয়নাল (১৩) ও সিংহারী গ্রামের জহির উদ্দিনের ছেলে সাদেক (৪০), মানিখাড়ি গ্রামের আব্দুল গণির ছেলে সোহেল (২২) মারা যায়।

আহতরা হলো- বহরমপুর গ্রামের জয়নুল (১৩), বাবু (২৮), মিঠুন (১৮), ইসাহাক (৩৫), রাসেল (১৬), সাদেকুল, মুনতারা (৪৫), নওসাদ (২৫), আঃ হান্নান (৬০), জয়গুন (৩৫), নুর নেহার (৬০), তৈমুর (২৫), সিংহাড়ী গ্রামের আফসারুল (২৮) ও সাদেকুল (৩২)। উল্লেখ্য নবাব ও সাদেক ঘটনাস্থলেই গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।

হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস সামাদ চৌধুরী বলেন, গুলিবিদ্ধ ১২ জনের শরীর থেকে গুলি বের করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য এম আব্দুর রহিম দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকাল অনুমান সাড়ে ১২টায় বহরমপুর গ্রামের চৌরাস্তা টাওয়ার এলাকায়।

ঘটনাস্থল ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বহরমপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান তার ২টি গরু যাদুরাণী হাটে বিক্রয়ের জন্য নিয়ে যাওয়ার পথে ৫০ বিজিবি ব্যাটালিয়ন বেতনা বিওপি বিজিবি সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গরু ২টি আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে প্রাক্কালে বহরমপুর গ্রামের লোকজনের রোশানলে মুখে পড়ে। এসময় গ্রামের লোকজন তাদের কাছ থেকে গরু কেড়ে নিতে চাইলে গ্রামবাসীর সাথে তাদের সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষ এড়াতে বিজিবি প্রথমে ফাঁকা গুলি ছোড়ে এতে জনতা উত্তেজিত হয়ে তাদের উপর আক্রম করলে পাল্টা এলোপাথাড়ি গুলি করলে ঘটনাস্থলে ২ জন মারা যান ও ১৪ জন আহত হন।

হাবিবুরের ছেলে ইয়াকুব আলী বলেন, গত ১৭ দিন আগে নেকমরদ বাজার থেকে ৮৩ হাজার ৫ শত টাকা দিয়ে গরু দুইটি কিনে নিয়ে আসি। গরু কেনার কাগজ পত্র দেখালেও বিজিবি সদস্যরা বিষয়টি আমলে নেয়নি।

হরিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থলের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা হয়েছে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ঠাকুরগাও জেলা বিজিবির সিও তুহিন বিন মোহাম্মদ মাসুদ জানান, বিজিবি সদস্যরা চোরাচালান বিরোধী অভিযানের সময় দুইটি গরু আটক করেন। এসময় বহরমপুর গ্রামে বিজিবি সদস্যরা বহরমপুর গ্রামে পোঁছলে চোরাকারবারিরা অতর্কিত হামলা করে। এ সময় বিজিবি সদস্যরা প্রাণ বাঁচাতে গুলি ছোড়ে।

জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম ও হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এমজে আরিফ বেগ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত