প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চা উৎপাদনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড, লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৯৭ লাখ কেজি বেশি উৎপাদন

হ্যাপি আক্তার : বছরের শুরুতেই কিছুটা প্রতিকূল আবহাওয়া থাকলেও পরে অনুকুল পরিবেশে চলে আসায় প্রত্যাশার চেয়ে বেশি উৎপাদন হয়েছে চা। বছর শেষে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৯৭ লাখ কেজি বেশি চা উৎপাদন হয়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে দেশের চাহিদা পূরণ করে আগামিতে বিদেশে চা রপ্তানির আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন।

চা উৎপাদনে আবারো ঘুরে দাঁড়াল বাংলাদেশ। চা চাষের ইতিহাসে এবার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উৎপাদনের রেকর্ড হয়েছে। এবছর চা বোর্ড ৭ কোটি ২৩ লাখ কেজি চা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করলেও, বছর শেষে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৯৭ লাখ কেজি বেশি উৎপাদন হয়েছে।  চা উৎপাদনে সর্বোচ্চ রেকর্ড হয় ২০১৬ সালে। সে বছর সাড়ে ৮ কোটি ৫০ লাখ কেজি চা উৎপাদন হয়। ২০১৭ সালে চা উৎপাদন কিছুটা কমে ৭ কোটি ৮৯ লাখ কেজি হলেও সদ্য সমাপ্ত বছরে সারা দেশের ১৬৬টি বাগানে উৎপাদন হয়েছে ৮ কোটি ২১ লাখ কেজি।

চা বাগান মালিক মেহবুব মোর্শেদ বলেছেন, গত দুই তিন বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভালো চা উৎপাদন হয়েছে এবার। যার কারণে বাগান মালিক চা উৎপাদনে আরো বেশি উৎসাহবোধ করছে।

চা বিষেজ্ঞ রজলুর রশিদ খান বলেছেন, চা চায়ের জন্য পরিমিত বৃষ্টিপাতের পাশাপাশি প্রয়োজন ঠিকমতো সার ও ওষুধ প্রয়োগ করা প্রয়োজন।  আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আগামী দিনে চা উৎপাদন আরো বাড়বে, এমনটাই প্রত্যাশা বাগান ব্যবস্থাপকের।

রাজনগর চা বাগানের ব্যবস্থাপক তোফায়েল আহমদ খান বলেছেন, পুরনো গাছগুলো তুলে ফেলে নতুন চারা গাছ লাগালো হচ্ছে এবং সময় মতো ওষুধ প্রয়োগ করা হচ্ছে। যার কারনে ফলন ভালো হচ্ছে। সম্পাদনা : জামাল

সর্বাধিক পঠিত