প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আশরাফুল আলম খোকনের প্রশ্ন, ৫টি মহৎপ্রাণের জন্যে কোনো সহানুভূতি নেই কেন

ফেসবুক থেকে, খবরে প্রকাশ একজন মানুষকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ দিলো ছাত্রলীগ যুবলীগের ৫ জন নেতা। যে মানুষটি ছিল মানসিক রোগী। রোববার রাত পৌণে ১২টার দিকে খুলনার রূপসা সেতু বাইপাস সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে। রাস্তা দিয়ে এলোপাথাড়ি দৌড়াচ্ছিলো মানসিক রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি, তাকে বাঁচাতে গিয়েই আচমকা একটি ট্রাকের নিচে চাপা পরে তাদেরকে বহনকারী প্রাইভেট গাড়িটি। ঝরে যায় ৫টি তরতাজা প্রাণ।

ক্ষণিকের মধ্যে লাশ হয়ে যাওয়া এই মানুষগুলোর জন্য শুধু সহযোদ্ধাদের কেউ কেউ সহানুভূতি দেখাচ্ছেন। অধিকাংশই চুপচাপ, সুশীলরাতো বটেই। যারা নিরাপদ সড়কের জন্য পারলে জীবনও দিয়ে দিতে চান। এই পাঁচটি মহৎ প্রাণের জন্য কোনো হাহাকার নেই,উহু-আহা শব্দ নেই, কোনো সহানুভূতিও নেই। কারণ সহানুভূতিটুকুও যদি দলীয়করণ হয়ে যায় এই ভয়ে। হায়রে সমাজ , হায়রে মানসিকতা।

কিন্তু ঘটনা যদি অন্যরকম হতো তাহলে কি হতো…?

ছাত্রলীগের হাত থেকে পাগলও রক্ষা পেলোনা, পাগলকে চাপা দিলো ছাত্রলীগ, পাগলও নিরাপদ নয় ছাত্রলীগের হাতে- এইসব বলে বলে হয়তো নিরাপদ সড়কের দাবিতে আপনাদের বিবেকগুলো জেগে উঠতো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত