প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উপজেলা নির্বাচনেও একাদশের আদলে জয়ের চমক রাখতে চায় আওয়ামী লীগ

সমীরণ রায়: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। ইতোমধ্যে ক্ষমতাসীন দলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি এই নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। সঙ্গত কারণেই বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ার ব্যাপারেও নমনীয় অবস্থানে ক্ষমতাসীনরা। এতে দলটির তৃণমূলে সংঘাতের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এসব আশঙ্কা সত্ত্বেও উপজেলায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আদলেই নিরঙ্কুশ জয়ের চমক ধরে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ। এমনকি প্রথম ও দ্বিতীয় দফায় উপজেলায় তরুণ, মেধাবী, সৎ ও যোগ্যদের দলীয় মনোনয়ন দিয়ে নিরঙ্কুশ জয়ের চমক ধরে রাখার আরেক ধাপ এগিয়েছে বলে মনে করেন দলটির নীতিনির্ধারকরা।

আওয়ামী লীগের একাধিক শীর্ষ নেতা মনে করেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ১৯ সদস্যের মনোনয়ন বোর্ড রয়েছে। এ বোর্ডের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল থেকে যেভাবে তালিকা ও সার্ভে রিপোর্ট এসেছে, সে অনুযায়ী তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এরই ভিত্তিতে প্রথম ও দ্বিতীয় দফায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে দলটি। আগামী ১০ মার্চ প্রথম দফায় ৮৭টি ও ১৮ মার্চ দ্বিতীয় দফায় ১২২ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, তৃতীয় ও চতুর্থ দফায় প্রার্থীদের মনোনয়ন দলের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের ২২ ও ২৩ ফেব্রুয়ারির সভায় চূড়ান্ত করা হবে। আর পঞ্চম দফায় নির্বাচনের মনোনয়ন আগামী জুনের আগেই চূড়ান্ত করা হবে। তৃতীয় ২৪ মার্চ, চতুর্থ ৩১ মার্চ ও পঞ্চম দফায় ভোট হবে ১৮ জুন। যেহেতু এই নির্বাচনে বিএনপি ও তাদের রাজনৈতিক মিত্ররা অংশ নিচ্ছে না। তাই নৌকা প্রতীকে উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যানের দুটি পদে দলীয়ভাবে প্রার্থী না দিয়ে উন্মুক্ত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, উপজেলায়ও আমরা প্রতিদ্ব›দ্বীতাপূর্ণ নির্বাচন চাই। আমরা চাই যত প্রার্থী, তত প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন হবে। এ জন্য আমরা কোনো ভয় পাই না। গণতন্ত্রের জন্য বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আমরা সম্পূর্ণ আশাবাদী। ইতোমধ্যে বিএনপি ও তাদের মিত্র রাজনৈতিক দলগুলো ঘোষণা দিয়েছে তারা অংশগ্রহণ করবে না। কিন্তু বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দলীয় মনোনয়ন না পেলেও তারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেবে। এমনকি তাদের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা যার যার অবস্থান থেকে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলেও আমাদের জয়ের ধারা অব্যাহত থাকবে।

এ সম্পর্কে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে প্রস্তুত। আমরা আশা করছি, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো উপজেলা নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে সাধারণ মানুষ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত