প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সার্ভিস লেন না থাকাতেই কমানো যাচ্ছে না মহাসড়কের দুর্ঘটনা, বললেন হোসেন জিল্লুর রহমান

জিয়ারুল হক : অনেকটাই বদলে গেছে দেশের মহাসড়কের চিত্র। ঢাকা-চট্টগ্রাম চারলেনের কাজ শেষে চলছে গাড়ি। ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চারলেনের কাজ শেষ পর্যায়ে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চারলেনের কাজও এগিয়ে চলেছে দ্রুত গতিতে। কিন্তু লাগাম টানা যাচ্ছে না দুর্ঘটনার। সেভ রোড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট এ্যালাইন্স (স্রোতা)’র আহ্বায়ক হোসেন জিল্লুর রহমান বললেন, সার্ভিস লেন না থাকাতেই কমানো যাচ্ছে না মহাসড়কের দুর্ঘটনা। সময় টিভি

পরিসংখ্যানের তথ্য, শুধু গত জানুয়ারি মাসেই মহাসড়কে ৩৬১ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে অন্তত চারশ জন এবং আহত হয়েছেন ৬৩১। এর মধ্যে ৫৭ শতাংশ দুর্ঘটনা ঘটেছে আঞ্চলিক ও আন্তজেলা সড়কে। দুর্ঘটনার মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ ৫৭টি, পার্শ্ববর্তি বস্তুর সঙ্গে ধাক্কা ১২টি, পথচারিকে আঘাত ১১৬টি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ৩৭টি, ওভাটেকিংয়ের কারণে ২৫টি এবং পেছন থেকে ধাক্কায় দুর্ঘটনা ঘটেছে ৯৩টি। এসব দুর্ঘটনা মহাসড়কে হলেও আধিক্য রয়েছে বাস, ট্রাক, সিএনজি, রিক্সা মোটরসাইকেল, সাইকেলের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি সবার আগে প্রয়োজন সার্ভিস লেন। মহাসড়কের মধ্যে সার্ভিস লেন রয়েছে শুধু ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কে। এবিষয়ে সেভ রোড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট এ্যালাইন্স (স্রোতা)’র আহ্বায়ক হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, মহাসড়ক মানে বড় রাস্তা নয়। তিনি বলেন, আঞ্চলিক রাস্তার দিকে নজর দিতে হবে। পার্শ্ব রাস্তা করতে হবে। রাস্তার পাশের অর্থনৈতিক কার্যকলাপকে গুরুত্ব দিয়ে মহাসড়কের কাজ করতে হবে।

নিজেদের সীমাবদ্ধতার কথা স্বীকার করে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শফিকুল ইসলাম বলেন, নতুন পরিকল্পনায় আমরা এসব প্রতিবন্ধকতার কথা ভাবছি। তিনি বলেন, রাস্তার যে ছোট গাড়ি চলে এগুলোর জন্য আমাদের কোন আলাদা রাস্তা নেই। এদেরকে আমরা রাতারতি তুলে দিতে পারি না। আমরা হাইওয়েসহ রিজিওনাল সড়কের দিকেও নজর দিচ্ছি। যাতে কম স্পিডের গাড়িগুলোর জন্য আলাদা লেন করে দিতে পারি। তাহলে সড়কের দুর্ঘটনা কমবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত