প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন আজ
জমছে না ঢাকা সিটির ভোট

অনলাইন ডেস্ক :  জমছে না ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদের উপনির্বাচন ও দুই সিটির ৩৬ ওয়ার্ডের কাউন্সিল নির্বাচন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছোটাছুটি নেই প্রার্থীদের। ভোটারদেরও ভোট নিয়ে কোনো আগ্রহ নেই। খবর বাংলাদেশ প্রতিদিন।
আলোচনার ঝড় নেই চায়ের আড্ডায়। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে নেই প্রচার-প্রচারণা। দেখা মিলছে না পোস্টারের। বিএনপিসহ বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদের উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না।

তবে আওয়ামী লীগ-জাতীয় পার্টিসহ ৫টি রাজনৈতিক দল এ ভোটে অংশ নিলেও তাদের নেতা-কর্মীদের মধ্যেও ভোট নিয়ে উৎসাহ-উদ্দীপনা নেই। নির্বাচন বিশ্লেষকরা বলছেন-বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল অংশ না নেওয়ায় এ নির্বাচন আকর্ষণ হারিয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদে মূলত নিরুত্তাপ নির্বাচন হতে যাচ্ছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় উত্তর সিটির মেয়র পদে উপনির্বাচনে ছয়জন প্রার্থী রয়েছেন। উত্তরে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী রয়েছেন ১৬০ জন। আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৪৫ জন এবং দক্ষিণ সিটিতে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী সংখ্যা ১৪৯ জন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২৫ জন। আজ ৯ ফেব্রুয়ারি এ নির্বাচনের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ১০ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ।

ইসির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন- ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে পাঁচজনের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়। পরে একজন প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় ভোটে ছয়জনের মনোনয়নপত্র টিকে থাকল। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদ, পিডিপির শাহীন খান, এনডিএমের ববি হাজ্জাজ, এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান ও স্বতন্ত্র মোহাম্মদ আবদুর রহিম। ঢাকা উত্তর সিটির ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার দুলাল আহমেদ। মেয়র পদে ভোট নিয়ে কী ভাবছেন জানতে চাইলে তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ভোট নিয়ে তো কোনো উৎসাহ দেখছি না।

ভোট দিতে যাব কি না এখনো ঠিক করিনি। পত্র-পত্রিকায় ভোট নিয়ে খবর দেখি কিন্তু ভোট চাইতে তো কেউ আসেনি। আছিয়া বেগম একজন গৃহিণী। তিনি উত্তর সিটির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার। কিন্তু তিনি জানেন না উত্তর সিটির মেয়র পদে উপনির্বাচন হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি। ভোট দিতে যাবেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, কবে ভোট? কিসের ভোট? কই কেউ তো ভোট চাইতে আসেনি। কোথাও ভোটের পোস্টারও তো দেখি না। এ বিষয়ে সুজন সম্পাদক ও নির্বাচন বিশ্লেষক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, আমাদের নির্বাচনী প্রক্রিয়া ও নির্বাচন কমিশনের প্রতি মানুষ আস্থা হারিয়েছে।

আর মেয়াদ কম থাকায় ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে প্রার্থীদের আগ্রহ নেই। ইসির কর্মকর্তারা বলছেন- বিএনপি এই ভোটে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার প্রেক্ষাপটে নতুন তফসিলের পরেও মনোনয়নপত্র তোলার ক্ষেত্রেও তেমন সাড়া ছিল না। এমনকি মেয়র পদে উপনির্বাচনে এক বছর আগে যারা মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন, তারাও সবাই ভোটে অংশ নেননি।

আনিসুল হকের মৃত্যুতে শূন্য ডিএনসিসিতে মেয়র পদে উপনির্বাচনের জন্য গত বছর তফসিল হলেও আদালতে তা আটকে গিয়েছিল। সম্প্রতি আদালতের সায় পাওয়ার পর আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোটের দিন রেখে গত ২২ জানুয়ারি পুনঃতফসিল দেওয়া হয়েছে। ঢাকা উত্তরে মেয়র পদেউপনির্বাচনের সঙ্গে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের নতুন ৩৬টি ওয়ার্ডেও ভোট হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি। ঢাকা উত্তরে ৯ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদেও উপনির্বাচন হবে একই দিন।

মেয়াদের বাকি সময়ের জন্য জনপ্রতিনিধি : প্রায় দুই বছর ধরে মেয়রের দায়িত্ব পালনের মধ্যেই ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর আনিসুল হকের মৃত্যু হয়। স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের প্রথম সভা থেকে পাঁচ বছর মেয়াদ থাকে শপথ নেওয়া জনপ্রতিনিধিদের। ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ভোটের পর মেয়র হিসেবে মে মাসে শপথ নেন আনিসুল হক। আর সিটি করপোরেশনের প্রথম সভা থেকে পাঁচ বছর মেয়াদ থাকে জনপ্রতিনিধিদের। ইসি কর্মকর্তারা ইতিমধ্যে জানিয়েছেন, উপনির্বাচনে যিনি মেয়র হবেন, তিনি ওই মেয়াদের বাকি সময়ের জন্য দায়িত্ব পালন করবেন। সেক্ষেত্রে নতুন যোগ হওয়া ওয়ার্ড কাউন্সিলরদেও মেয়াদও মেয়রের মতো সিটি করপোরেশনের বাকি সময়ের জন্য হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত