প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন থাই রাজকুমারি

আসিফুজ্জামান পৃথিল : থাইল্যান্ডের বর্তমান রাজা মাহা ভিজিরালঙকন এর বোন আগামী মাসে দেশটির সাধারণ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী পদে লড়াই করার জন্য মনোনিত হয়েছেন। তিনি দেশটির ক্ষমতাশীন সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে লড়াই করবেন। তবে সেনা সমর্থকরা বলছেন, রাজপরিবারের সদস্যদের রাজনীতি করা বৈধ নয়। গার্ডিয়ান, বিবিসি, সিএনএন, এএফপি।

শুক্রবার থাই রক্ষা চার্ট পার্টি নিশ্চিত করে রাজকুমারি উবলরত্ন রাজকন্যা শ্রীভাদানা বারানাভাদি প্রধানমন্ত্রী পদে লড়াইতে অংশ রিচ্ছেন। থাই রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা একে রাজনৈতিক ভুমিকম্প আখ্যা দিয়েছেন। এই পদে লড়াই করা তিনিই প্রথম রাজপরিবার সদস্য। নির্বাচনে তিনি মোকাবেলা করবেন অভ্যুত্থান করে ক্ষমতা দখল করা সেনা প্রধান প্রাউট চান-ও-চা। শুক্রবার তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, তিনি শান্তি ও শৃঙ্খলা রক্ষা করতে চান। উবলরত্ন’র দল সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রার দলের মিত্র। ২০০৬ সালের অভ্যুত্থানে তিনি ক্ষমতাচ্যুত হন। বর্তমানে তিনি নির্বাসনে রয়েছেন। উবলরত্ন সবসময় প্রকাশ্যেই থাকসিনের সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করেছেন।

এই আচমকা ঘোণষার পূর্বে আসন্ন নির্বাচনকে সিয়াওয়াত্রার গোঁড়া সমর্থক এবং তাদের মিত্রদের সঙ্গে রাজতন্ত্র ও সেনাবাহিনীর লড়াই হিসেবে দেখা হচ্ছিল। তবে এক ঘোষণাতেই সব হিসেবে নিকেষ পাল্টে গেলো। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ঘোষণার ফলে ছোট দল থাই রক্ষা চার্ট দ্রুততার সঙ্গে পাদপ্রদিপের আলোতে চলে এসেছে। উবলরত্ন (৬৭) বর্তমান রাজার বড় বোন এবং সাবেক রাজা ভুমিবলের জেষ্ঠ্য সন্তান। ১৯৭২ সালে বিদেশী নাগরিক বিয়ে করার কারণে তিনি রাজকীয় উপাধী ত্যাগ করেন। তবুও তাকে রাজপরিবারের সদস্য বিবেচনা করা হয়। থাইল্যান্ডে রাজপরিবার সর্বদাই রাজনীতির ঊর্ধে বলে বিবেচিত হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত